| সকাল ৮:৫৬ - শুক্রবার - ২৩শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ - ৭ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ - ৫ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪২ হিজরি

ময়মনসিংহে পরবর্তী ঘোষণা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে করোনা’র নমুনা সংগ্রহের কাজ

লোক লোকান্তরঃ  ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের ল্যাবে করোনা শনাক্তের পরীক্ষা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করা হয়েছে। পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত ময়মনসিংহে নমুনা সংগ্রহ বন্ধ থাকবে বলে জানা গেছে।

 

বুধবার (১৭ জুন) ময়মনসিংহ সিভিল সার্জন অফিস এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

 

সিভিল সার্জন ডাঃ এবিএম মশিউল আলম জানান, আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত ময়মনসিংহে নমুনা সংগ্রহ করা বন্ধ থাকবে। নতুন টেষ্ট কিট আসছে বিধায় এই সিদ্ধান্তে সাময়িক সমস্যা আমাদের মানতে হবে।

 

এদিকে আজ বুধবার কারিগরি ত্রুটির কারণে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা সম্পন্ন হয়নি। বুধবারের রিপোর্ট পরবর্তীতে প্রদান করা হবে।

 

পিসিআর ল্যাবে কারিগরি ত্রুটির কারণে নমুনা পরীক্ষা না হওয়া এবং নমুনা সংগ্রহ বন্ধ থাকার বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিএমএ ময়মনসিংহ শাখার সভাপতি ডা. মতিউর রহমান ভূঁইয়া।

 

তিনি বলেন, ‘গত ১৫ দিনে আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে করোনা রোগীর সংখ্যা। এমন পরিস্থিতিতে যদি নমুনা বন্ধ থাকে তাহলে সংক্রমণের সংখ্যা যেমন বাড়বে তেমনি চিকিৎসা ব্যবস্থার উপরও প্রভাব পড়বে। দ্রুত এই সমস্যার সমাধান করা উচিত।’

 

অন্যদিকে ময়মনসিংহ বিভাগের চার জেলায় (ময়মনসিংহ, শেরপুর, জামালপুর ও নেত্রকোনা) হু হু করে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। যত বেশি নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে, ততই বাড়ছে বিভাগ ও জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা। উদ্বেগজনক হারে আক্রান্ত হচ্ছেন র‌্যাব-পুলিশ সদস্যসহ চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা।

 

গত দুদিনে ময়মনসিংহ জেলায় দেড় শতাধিক রোগী পজিটিভ শনাক্ত হওয়ায় উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বেড়েছে স্বাস্থ্য বিভাগসহ সচেতন নগরবাসীর মধ্যেও। আতঙ্ক বেড়েছে সর্বসাধারণের মাঝে।

 

এদিকে গতকাল ময়মনসিংহ জেলায় ১৪৫ জনের করোনা পজিটিভ রয়েছে। যা একদিনে জেলায় করোনা পজিটিভ হওয়ার সর্বোচ্চ রেকর্ড।

 

গতকাল বিভাগে ময়মনসিংহ জেলায় ১৪৫ জন, নেত্রকোনা জেলায় ১৯ জন, শেরপুর জেলায় ১০ জন এবং জামালপুর জেলায় ৩৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

 

এনিয়ে ময়মনসিংহ বিভাগে আক্রান্ত ২,২২৪ জনের মধ্যে ময়মনসিংহ জেলায় ১,২০৪ জন, জামালপুর জেলায় ৪৫৫ জন, নেত্রকোনা জেলায় ৩৬৬ জন এবং শেরপুর জেলায় ১৯৩ জন। মঙ্গলবার সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫৬ জন। এনিয়ে চার জেলায় সুস্থ হলেন ৮০০ জন।

 

এখন পর্যন্ত বিভাগে সর্বমোট মারা গেছেন ২৩ জন। এরমধ্যে ময়মনসিংহ জেলায় ১২ জন, জামালপুর জেলায় ৫ জন এবং নেত্রকোনা জেলায় ৩ জন ও শেরপুর জেলায় ৩ জন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১০:১২ অপরাহ্ণ | জুন ১৭, ২০২০