| বিকাল ৪:১১ - বৃহস্পতিবার - ২৬শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ - ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ - ১০ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

পঙ্গপাল আক্রমন বাংলাদেশে নয় : সজাগ কৃষি বিভাগ (ভিডিও)

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ   পঙ্গপাল ঘাসফড়িং প্রজাতির হয়। ঘাসফড়িং একা একা বসবাস করে, আর পঙ্গপাল অবস্থান করে ঝাঁকে ঝাঁকে। ইংরেজিতে এদের বলা হয় লোকাষ্ট। ঝাঁকে ঝাঁকে থাকার ফলে এদের লোকাষ্ট সোর্য়াম বলা হয়ে থাকে।

 

কৃষি শষ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর পোকামাকড় এড়া। পঙ্গপালের সংখ্যা অসম্ভব রূপে বৃদ্ধি পেলে এড়া উড়তে চায়। মাটিতে পঙ্গপালের ডিম দীর্ঘকাল টিকে থাকতে পারে, এমনকি ২০ বছর পরও এদের ডিম থেকে বাচ্চা হতে পারে। ডিম ফুটে বাচ্চা হলে এড়া উড়তে পারে না।

 

একটা বাচ্চা পঙ্গপাল সাধারণত পূর্ণ বয়স্ক হতে ৪ থেকে ৫ সপ্তাহ সময় লাগে। পূর্ণ বয়স্ক হবার পর তাদের শারিরীক গঠন খুব দ্রুত বৃদ্ধি পায়। প্রাপ্ত বয়স্ক পঙ্গপাল প্রতিদিন নিজের ওজনের সমান খাদ্য গ্রহণ করে। পঙ্গপালের ঝাঁক একদিনে হাজার হাজার টন খাদ্য খেতে পারে।

 

এড়া দলবেধে প্রতিদিন সামনের দিকে এগিয়ে যায়। যাতায়াতের সময় এড়া নিজের দেহের শক্তি সঞ্চয় করে বাতাসের উপর ভর করে চলতে থাকে। বাতাস যে দিকে যায় পঙ্গপালের ঝাঁকও সেদিকে আক্রমন করে। যাত্রাপথে আরো নতুন নতুন ঝাঁকের সাথে মিলিত হয়ে অতিকায় ঝাঁক তৈরি করে। এসকল পোকা আক্রমন করলে কোন গাছের পাতাও অবশিষ্ঠ থাকে না।

 

পবিত্র কুরআন এবং বাইবেলে পঙ্গপালের আক্রমণের কথা রয়েছে। মানুষের কর্মফলের জন্য সৃষ্টিকর্তা এ দিয়ে শাস্তি দিবেন।

 

বিশেষজ্ঞদের মতে এরা দিনের বেলায় শষ্য ধ্বংস করে, আর রাতের বেলায় এরা বিশ্রাম নেয়। বিশ্রামের সময় এরা বংশ বিস্তার করে। বিস্তার রোধে আক্রমন অঞ্চলের কৃষি বিভাগ ঢাক-ঢোল পিটিয়ে পঙ্গপালের বিশ্রামের সুযোগ না দিয়ে জীবানু নাশক ছিটিয়ে ও স্প্রে করে এদের নিয়ন্ত্রন করছে।

 

বিশ্ব বির্পযয় করোনা সামাল দিতে না দিতেই এসে পড়ছে শষ্যঘাতি পঙ্গপাল। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ হয়ে ভারতের বেশ কয়েকটি অঙ্গরাজ্যে আক্রমন করেছে এ পঙ্গপাল। আমাদের কৃষি বিভাগ এ নিয়ে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞের মতামতে কৃষি নির্ভর বাংলাদেশে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনে পদক্ষেপ ও সজাগ রয়েছেন।

 

বাংলাদেশে পঙ্গপাল আক্রমণ আশঙ্কা পুরোপুরি উড়িয়ে দিয়েছে জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা। তারা বলছে, পঙ্গপাল ভারত পাকিস্তান সীমান্ত পর্যন্ত আসতে পারে তার বেশি নয়। বাংলাদেশে পঙ্গপাল আক্রমণের সম্ভাবনা নেই।

 

শষ্যঘাতি পঙ্গপালের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও কৃষি মন্ত্রী কৃষিবিদ ড. আব্দুর রাজ্জাকের নির্দেশে কৃষি অধিদপ্তরকে সর্তক থাকার কথা বলেছেন। কৃষি মন্ত্রণালয় বৈঠকে সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছে বলে জানান কৃষি বিভাগ ময়মনসিংহ অঞ্চলের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ ড. রেজাউল করিম।

 

ভিডিও –

সর্বশেষ আপডেটঃ ৬:৪২ অপরাহ্ণ | জুন ১২, ২০২০