|

আগামী মার্চে ময়মনসিংহ বিভাগের প্রথম অর্থনৈতিক অঞ্চলের জমি বরাদ্দ শুরু

লোক লোকান্তরঃ  এক প্রশ্নের উত্তরের বেজা জানায় জামালপুরের সদর উপজেলায় ৪৩৬ একর জমিতে স্থাপিত হচ্ছে ময়মনসিংহ বিভাগের প্রথম অর্থনৈতিক অঞ্চল।

 

জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চল হিসেবে পরিচিতি পাওয়া এই বিশেষ শিল্পাঞ্চলে ২০১৯ সালের প্রথম প্রান্তিকে জমি বরাদ্দ শুরু হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ, বেজা।

 

সোমবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চল উন্নয়নে বিনিয়োগ আকর্ষণ বিষয়ক এক সেমিনারে বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বলেন, জোনটি উন্নয়নে বেজা ইতোমধ্যে সম্ভাব্যতা সমীক্ষা প্রতিবেদন প্রণয়নের কাজ শেষ করেছে এবং ভূমি উন্নয়নসহ গ্যাসও বিদ্যুৎ সংযোগের কাজ চলমান রয়েছে।

 

“বেজা মনে করে জোনটির উন্নয়নকাজ আগামী মার্চের মধ্যে সমাপ্ত হবে এবং পরবর্তীতে জমি বরাদ্দের কাজ শুরু করা হবে।”

 

সেমিনারে বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ ও এফবিসিসিআইর সভাপতি মো. শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বক্তব্য রাখেন।

 

মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ বলেন, “ব্যবসার যাবতীয় সুযোগ সুবিধা থাকবে জামালাপুর অর্থনৈতিক অঞ্চলে। সেখানে জমি কিনতে ট্যাক্স দিতে হবে না। প্রথম দশ বছরে উৎপাদিত পণ্যে কোনো ট্যাক্স দিতে হবে না। শতভাগ বিদেশি বিনিয়োগেও কোনো বাধা নেই। এছাড়া অর্থনৈতিক অঞ্চলের জন্য সরকারের অন্যান্য সুবিধাগুলো এখানে থাকবে।”

 

এই অর্থনৈতিক অঞ্চলে জামালাপুরের ব্যবসায়ীদেরকেই সবার আগে বিনিয়োগের আহ্বান জানান তিনি।

 

পাট ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, জামালপুর বাংলাদেশের অন্য যে কোনো জেলার তুলনায় রাজনৈতিকভাবে শান্ত একটি জেলা। এখানে কোনো সহিংসতা নেই। এই অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কোনো রাজনৈতিক ঝামেলায় পড়তে হবে না।

 

এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল বলেন, বেজা যে শিল্প বিকেন্দ্রীকরণের উদ্যোগ নিয়েছে তার অংশ জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চল উন্নয়ন। ভারতের মেঘালয় রাজ্যের পাশে অবস্থিত হওয়ার কারণে এই অর্থনৈতিক অঞ্চলে উৎপাদিত পণ্য যাতে করে সেখানে রপ্তানি করা যায় সরকারকে সেই উদ্যোগ নিতে হবে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:৪৪ অপরাহ্ণ | জুন ০৫, ২০১৮