|

পেন ড্রাইভে আশেপাশের বারোশো মহিলার অশালীন ছবি!

লোক লোকান্তরঃ  মাথায় হয়তো কখনো আসবেনা যে ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবিও যে চুরি হতে পারে। বাড়িতে ঘরোয়া পোশাক পরা অবস্থায় লোক চক্ষুর আড়ালে কিংবা বাথরুমে লুকোনো ক্যামেরায় ছবি তুলছে কেউ। তারপর সেই ছবি জমা রাখছে নিজের পেনড্রাইভে।

 

এভাবে আশেপাশের বিভিন্ন বয়সের মহিলার কয়েকশো এরকম ছবি তুলে পেনড্রাইভে রাখত পশ্চিমবঙ্গের বেহালার তিরিশ বছরের কৃশানু বিশ্বাস। বারোশোর বেশি এরকম ছবি মিলেছে কৃশানুর কাছে। অনেক বছর ধরে এই কাজ করলেও কেউ টা ধরতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত পেনড্রাইভ হারিয়ে ধরা পড়ে এই কৃশানু নামের যুবক।

 

কিছুদিন আগে কৃশানুর অফিসে পেনড্রাইভটি হারিয়ে যায়। সেই পেনড্রাইভটি খুঁজে পান তারই এক সহকর্মী। পেনড্রাইভটি কার জানতে চেয়ে কম্পিউটারে লাগাতেই একটি ফোল্ডার সামনে চলে আসে।

 

সেই ফোল্ডার খুলতেই দেখা মেলে একের পর এক মহিলার ছবি। ওই ফোল্ডারের মধ্যে কয়েকজন পরিচিত মহিলার ছবি শনাক্ত করেন যাঁরা কৃশানুর প্রতিবেশী। পরে সেই পেনড্রাইভ কৃশানুর প্রতিবেশী প্রীতম শূরের কাছে দেয়া হয়।

 

প্রীতম শূর বলেন, “পেন ড্রাইভ খুলে আমরা রীতিমতো হতবাক। এই পাড়া, পাশের পাড়ার হেন কোনও মহিলা নেই যার ছবি নেই এই পেন ড্রাইভে। কেউ বাড়ির পোশাকে, কেউ বাথরুমে— সেই অবস্থায় এই ছবি তোলা হয়েছে। লুকিয়ে নিজের আত্মীয়দেরও প্রায় নগ্ন ছবি তুলেছে কৃশানু।”

 

গোটা বিষয়টি জানাজানি হতেই পর্ণশ্রী থানায় কৃশানুর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানান পাড়ার লোকজন। অবস্থা বেগতিক দেখে গা-ঢাকা দিয়েছে অভিযুক্ত যুবক। যদিও অভিযুক্তের বাবা-মার দাবি তাঁদের ছেলে নির্দোষ।

 

তদন্তকারী এক কর্মকর্তা বলেন, “অভিযুক্ত এই সব ছবি নিজের পেন ড্রাইভে রাখত, না এই ছবি বিভিন্ন পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইটে ব্যবহার করত, সেটা জানা এখন বেশি প্রয়োজন।” সুত্রঃ আনন্দবাজার

সর্বশেষ আপডেটঃ ১০:৪২ পূর্বাহ্ণ | মে ২৮, ২০১৮