|

পতিতালয়ে বিক্রির সময় নবম শ্রেণির ছাত্রী উদ্ধার

লোক লোকান্তরঃ  রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া যৌনপল্লিতে বিক্রির সময় নবম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় এক নারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

গত ১৪ মে, সোমবার উদ্ধার হওয়া ওই স্কুলছাত্রী বাদী হয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মিতু বেগম ও বাবলুকে অভিযুক্ত করে মানবপাচার আইনে মামলা করেছে।

 

পুলিশ জানায়, উদ্ধার হওয়া কিশোরী নাটোর সদরের দিঘাপতি এলাকার মেয়ে। দারিদ্র্যের কারণে লেখাপড়া ছেড়ে সে কাজের খোঁজে রাজধানীর মিরপুরে গিয়েছিল। সেখানে তার সঙ্গে গোয়ালন্দের বাবলুর পরিচয় হয়। বাবলু তাকে ভালো বেতনে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে রবিবার বিকালে দৌলতদিয়ায় নিয়ে আসেন। পথে পাটুরিয়া ঘাটে ওই স্কুলছাত্রীকে মিতু বেগম নামে এক নারীর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন বাবলু।

 

সন্ধ্যায় দৌলতদিয়া ঘাটে যৌনপল্লির কাছাকাছি এসে তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয় এনজিওর কর্মীরা পুলিশে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার ও মিতুকে আটক করে। এ সময় কৌশলে বাবলু পালিয়ে যান।

 

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি (তদন্ত) সহিদুল ইসলাম বলেন, ‘মানবপাচার মামলায় মিতু বেগমকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। সোমবার উদ্ধার হওয়া কিশোরী ও গ্রেফতারকৃত মিতুকে রাজবাড়ীর মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে পাঠানো হয়।’

 

ছবিঃ প্রতীকী

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:৪৫ অপরাহ্ণ | মে ১৭, ২০১৮