|

স্কুলছাত্রের প্রেমে বিচ্ছেদ, ঘুমের ট্যাবলেটে কাজ না হওয়ায় ট্রাকের নিচে আত্মহত্যা

লোক লোকান্তরঃ  প্রেমে বিচ্ছেদ সইতে না পেরে ঘুমের ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায় নবম শ্রেণির ছাত্র রিয়াদ হোসেন (১৪)। চিকিৎসায় ভালো হওয়ার পরপরই মহাসড়কে চলন্ত ট্রাকের সামনে দাঁড়িয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়।

 

বৃহস্পতিবার সকালে নাটোরের বড়াইগ্রামে বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের রেজুর মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

 

নিহত রিয়াদ উপজেলার বাগডোব গ্রামের আবদুল খালেকের ছেলে ও বড়াইগ্রাম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র। সে গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়ে জেএসসিতে উত্তীর্ণ হয়েছিল।

 

নিহতের বন্ধু ও স্বজনরা জানান, অষ্টম শ্রেণিতে পড়ার সময় সে সহপাঠী এক মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। নবম শ্রেণিতে ওঠার পর মেয়েটি তার বাবার চাকরির বদলি সূত্রে নওগাঁয় চলে যায়।

 

দূরত্বের কারণে দেখাসাক্ষাৎ ও যোগাযোগ কমে যাওয়ায় সম্প্রতি তাদের সম্পর্কের বিচ্ছেদ দেখা দেয়। এ ঘটনায় তিন দিন আগে রিয়াদ ঘুমের ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলে তাকে বড়াইগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসা শেষে বুধবার রাতে তাকে বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়।

 

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে সে কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে রেজুর মোড়ে ঘুরতে যায়। হঠাৎ সে মহাসড়কে একটি চলন্ত ট্রাকের সামনে দাঁড়িয়ে যায়। এ সময় বন্ধুদের ডাক-চিৎকারেও সে ফিরে না আসায় ট্রাকটির ধাক্কা খেয়ে সে রাস্তায় ছিটকে পড়ে।

 

পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুরে সে মারা যায়।

 

বনপাড়া হাইওয়ে থানার ওসি জিএম শামসুন নুর দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:৪০ পূর্বাহ্ণ | মে ১১, ২০১৮