|

ভালুকায় হঠাৎ বর্ষণে তলিয়ে গেছে ৫হাজার হেক্টর বোর ফসল

মোঃ ফিরোজ খান, ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ   ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার রাজৈ, বিরুনীয়া, কাচিনা ও ভরাডোবা ইউনিয়নের দুটি পাথার ও শতাধিক বিলে গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে প্রায় ৫ হাজার হেক্টর জমির পাকা বোর ধান পানির নিচে তলিয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে প্রায় ২০ হাজার কৃষক।

 

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার রাজৈ, বিরুনীয়া, কাচিনা ও ভরাডোবা ইউনিয়নের মধুনী ও মোহনার পাথার, মংলাদাইর, সোহাল চাপড়া, উরি মইশাল, জাপড়া, ভাওয়ালিয়াবাজু, পোলামারা, বরাইল ও হরইল বিলসহ শতাধিক বিলে গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এতে প্রায় ২০ হাজার প্রান্তিক কৃষকের ৫ হাজার হেক্টর জমির পাকা ও আধা পাকা বোর ধান পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

 

টানাবৃষ্টিতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি না হলে ৮ থেকে ১০ দিনের মধ্যে কৃষকরা তলিয়ে যাওয়া ক্ষেত হতে ধান কেটে ঘরে তুলতে পারত। অনেক কৃষক পানির নিচের ধান কাটার চেষ্টা করছে। কোন কোন বিলে বেশী পানি হওয়ায় পানির সাথে কচুরী পানা ভেঁসে ধান ক্ষেতে ঢুকে পড়ায় দেখলে মনে হবে এ যেন এক জলাশয়। এভাবে কিছুদিন তলিয়ে থাকলে পচেঁ যাবে কৃষকের সকল ধান।

 

কষ্টার্জিত প্রধান এ ফসল চোখের সামনেই তলিয়ে যাওয়ার দৃশ্য ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা সহজে মেনে নিতে পারছেন না। আগামী ফসল না আসা পর্যন্ত কি খাবে, কি ভাবে সংসার চালাবে এ নিয়ে রয়েছেন তারা দু,চিন্তায়।

 

উপজেলার রাজৈ ইউনিয়নের মধুনী পাথারসহ কিছু বিল পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধীনে একটি সুইচ গেইটের আওতায় থাকালেও পানি নিষ্কাশনের কানিহারী ও আন্দেজুরী নামক দু’টি সরকারী খাল ধানী জমি বানিয়ে দখল করে নিয়েছে কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি।

 

এছাড়াও রাতের আধাঁরে খালে বাশেঁর খুটি পুতে পলিথিন দিয়ে পানি আটকিয়ে এক শ্রেনীর জেলে মাছ শিকার করায় ফিকে যাচ্ছে উজানের পানি এবং এত করে সৃষ্টি হয়েছে ওই এলাকার জলাবদ্ধতা। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদ কামাল ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জলাবদ্ধ এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

 

উপজেলা কৃষি অফিসার সনজয় কুমার পাল জানান, চলতি মৌসুমে ভালুকা উপজেলায় ১৮ হাজার ৬শত ৪৫ হেক্টর জমিতে বোর আবাদ করা হয়। হঠাৎ অতি বৃষ্টিতে ৮শত হেক্টর জমির ধান পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

 

১১নং রাজৈ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাদশা প্রান্তিকের সাথে প্রতিনিধির এব্যপারে আলাপকালে  কৃষকদের প্রধান বোর ফসল ঘরে তোলার স্বার্থে সুইচ গেইটসহ বিভিন্ন পয়েন্টে শতাধিক বৈদ্যুতিক পানির পাম্প বসিয়ে দ্রুত পানি নিষ্কাশন ও ভবিষৎ এর জন্য মংলাদাইরসহ কয়েকটি বিলের পানি সুতিয়া নদীতে প্রবাহের স্বার্থে একটি সুইচ গেইট স্থাপন ও কানহারী খাল খননের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানান।

 

ছবিঃ লোক লোকান্তর

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:৪০ পূর্বাহ্ণ | মে ০৯, ২০১৮