|

আমদানী নিষিদ্ধ ১৩ কোটি টাকার সিগারেট জব্দ

লোক লোকান্তরঃ  মিথ্যা ঘোষণায় আনা আমদানী নিষিদ্ধ ৩০৩ ও ‘মন্ড’ ব্রান্ডের ৬৫০ কার্টন এ চালানে মোট ১ কোটি ৩০ লাখ সিগারেটের শলাকার একটি চালান আটক করেছে কাস্টম কর্তৃপক্ষ। যার বর্তমান বাজার মূল্য ১৩ কোটি টাকা বলে জানায় চট্টগ্রাম কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

 

শনিবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে চট্টগ্রাম বন্দরের এনসিটি ইয়ার্ডে চালানটি জব্দ করা হয়।

 

কাস্টম হাউসের ডেপুটি কমিশনার নূর উদ্দিন মিলন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চালানটি আটক করেন। ঢাকার পুরানা পল্টন এলাকার গ্রাম বাংলা করপোরেশনের নামে এমভি ওয়েল স্ট্রেইটস নামের একটি জাহাজে সিঙ্গাপুর বন্দর থেকে বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম বন্দরে আসে ২০ ফুট লম্বা কনটেইনারটি (সিএনসিইউ ১৫০৪৬২০)।

 

প্রতিষ্ঠানটির ঘোষণা ছিল ৫৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ ডিউটির ৩৩৭ বেল (চাক্কি) ফেল্ট বা ফোম। কিন্তু কনটেইনারটি স্ক্যানিং করে দেখা যায় কার্টনে ভরা। তখন সিগারেট বলে সন্দেহ হয় এআইআর কর্মকর্তাদের। এরপর কনটেইনারটি বন্দরের নিরাপত্তা বিভাগের জিম্মায় দেওয়া হয়।

 

কায়িক পরীক্ষা শেষে কাস্টম হাউসের কমিশনার ড. একেএম নুরুজ্জামান বলেন, আমরা খোঁজ নিয়ে, বিআইএন নাম্বার তদন্ত করে দেখি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানটি ভুয়া। তারা আগে কখনো আমদানি করেনি।

 

ফোমের সরকার নির্ধারিত শুল্ক ৫৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ। অন্যদিকে আমদানীযোগ্য সিগারেটের শুল্ক ৪৫০ শতাংশ। সিগারেটের যে চালানটি জব্দ করা হয়েছে তার মূল্য প্রায় ১৩ কোটি টাকা। এটির আমদানীর অনুমতি থাকলে ঘোষণাপত্র অনুযায়ী ৯ কোটি টাকার শুল্ক ফাঁকি দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। এটি দেশের সবচেয়ে বড় চোরাচালান।

 

রাষ্ট্রের অনুকূলে সিগারেটগুলো বাজেয়াপ্ত করা হবে। কাস্টম কর্তৃপক্ষ সিগারেটগুলোর গুণগতমান ঠিক থাকলে পর্যটন করপোরেশনের কাছে বিক্রি করা হবে। নয়তো ধ্বংস করা হবে। তিনি বলেন, শিপিং এজেন্ট ও ব্যাংককে চিঠি দেওয়া হবে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১২:১৪ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২৯, ২০১৮