|

জামালপুরে স্ত্রী হত্যায় স্বামী সহ পরকিয়ায় অভিযুক্ত প্রেমিকা গ্রেফতার

লোক লোকান্তরঃ  জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চখারচর গ্রামের গৃহবধু হালিমা হত্যা মামলার আসামি ঘাতক স্বামী আবদুস সালাম (৪০) ও পরকিয়া প্রেমের অভিযুক্ত নারী পলি আক্তার পয়সা কে (২৭) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

 

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার নরসিংদি এলাকার কাউরিয়া কবরস্থান সদর হাসপাতাল রোড থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। সোমবার সকালে তাদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

 

জানাগেছে, প্রায় ২০ বছর পূর্বে দেওয়ানগঞ্জের শাহাজাতপুর গ্রামের দরিদ্র কৃষক সামসুল হকের মেয়ে হালিমা বেগম (৩২) এর বিয়ে হয় একই উপজেলার চখারচর গ্রামের মৃত অমেজ ব্যাপারীর পুত্র আবদুস সালামের সাথে। বিয়ের পর তাদের ঘরে দুটি সন্তানও জন্ম নেয়।

 

বিয়ের পর থেকেই আবদুস সালাম যৌতুকের জন্য হালিমাকে নির্যাতন করে আসছিল। ৫ বছর পূর্বে আবদুস সালাম হালিমাকে রেখেই দ্বিতীয় বিয়ে করে। বিয়ের কিছুদিন পর সালামের নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে দ্বিতীয় স্ত্রী রোজিনা দেড় বছর পূর্বে সালামকে তালাক দিয়ে বাবার বাড়িতে চলে যায়।

 

এরপর চখারচর গ্রামের মৃত আবদুল করিমের তালাক প্রাপ্ত মেয়ে পয়সা বেগম (২৭) এর সাথে পরকিয়ায় জড়িয়ে পরে সালাম। এ নিয়ে হালিমার সাথে লম্পট আবদুস সালাম ও তার পরিবারের লোকজনের সাথে ঝগড়া বিবাদ হয়।

 

এর জের ধরে গত ২৮ মার্চ রাতে আবদুস সালাম তার নিজ ঘরে হালিমাকে গলাকেটে নির্মমভাবে হত্যার পর পরিবারের লোকজনের সহায়তায় লাশ গুমের চেষ্টা করে। ২৯ মার্চ দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ স্বামীর বাড়ী থেকে গৃহবধু হালিমার গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে।

 

এ ঘটনায় হালিমার ভাই বাদী হয়ে দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানায় গত ২৯ মার্চ হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় অমেজ আলী ব্যাপারীর পুত্র আবদুস সালাম (৪০), সোহরাব আলী (৪৮), মজিবর (৫০), আঃ সামাদ (৪৬), বানেজ উদ্দীনের পুত্র আইয়ুব আলী (২৬), ফজল হকের পুত্র জাবের আলী (৪৫), অফিল মিয়ার স্ত্রী মরিচ ফুল (৩৬) কে। চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকান্ডের পর লাশ গুমের চেষ্টার সাথে জড়িত আসামিরা হচ্ছে- চখারচর গ্রামের মৃত নুর মোহাম্মদের পুত্র বিল্লাল হোসেন (৪৮), মোস্তফার স্ত্রী কাজলী বেগম (৪০), মৃত অমেজ আলী ব্যাপারীর পুত্র মোস্তফা (৫২), অফিল মিয়া (৪২), মৃত হাজি জমশেদ আলীর পুত্র নাজিম উদ্দীন (৪৬) কে আসামি করা হয়।

 

চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকান্ডের মুল হোতা ঘাতক স্বামী সালামসহ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

 

এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার ওসি তদন্ত মোঃ আবদুল লতিফ মিয়া বলেন, আসামীদের গ্রেফতার করে সোমবার সকালে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অন্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১০:০৬ পূর্বাহ্ণ | এপ্রিল ২৪, ২০১৮