|

ময়মনসিংহের প্রথম অনলাইন রেডিও স্টেশন

‘রেডিও ১৯’-এর পরীক্ষামূলক সম্প্রচার শুরু

‘যুগান্তরের ঘূর্ণিপাকে’ স্লোগান নিয়ে ময়মনসিংহ থেকে পরীক্ষামূলক সম্প্রচার শুরু করেছে ‘রেডিও ১৯’। বাংলা নববর্ষ-১৪২৫-এর প্রথম মাস বৈশাখ উপলক্ষে আজ  অনলাইনে পরীক্ষামূলক সম্প্রচারের মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু করল রেডিওটি।

‘রেডিও ১৯’-এর প্রধান নির্বাহী রাসেল রনি বলেন, পৃথিবীর উন্নয়নে গণমাধ্যমের রয়েছে ব্যাপক অবদান আর তথ্যপ্রযুক্তির এই যুগে মিডিয়া একটি বড় মাধ্যম । এটি হবে এ দেশের কোটি মানুষের হৃদয়ের স্পন্দন।

‘রেডিও ১৯’-এর প্রধান উপদেষ্টা বিশিষ্ট অভিনেতা, নাট্যকার ও চলচ্চিত্র পরিচালক গাজী রাকায়েত বলেন, ‘আমাদের সংস্কৃতিতে ১৯ সংখ্যাটির অনেক তাৎপর্য রয়েছে। বায়ান্নর ভাষা আন্দোলনের ১৯ বছর পর একাত্তরে পেয়েছি স্বাধীনতা, এরপর ১৯ বছর পর পেয়েছি নব্বইয়ের গণতন্ত্র। এর ১৯ বছর পর ২০০৯-এ জনগণের রায়ের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি ক্ষমতায় আসে, এর ১৯ বছর পর ২০২৮-এর প্রতীক্ষা।’ রবীন্দ্রনাথের রথের রশী নাটকে কবি বলেন, বরাবর যা প্রচ্ছন্ন, তা প্রকাশিত হওয়ার সময়টাই যুগান্তর’, এই দেশে বাঙালির যুগান্তর তা হলে ১৯ বছর।

ময়মনসিংহের কিছু তরুণ এই ১৯ সংখ্যাটা মাথায় রেখে আমাদের যুগান্তরে প্রকাশ পাওয়া সত্যকে বুকে ধারণ করে সামনে এগিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে সৃজন করল সংস্কৃতির নতুন মাত্রা রেডিও ১৯। তারা যুগ যুগ ধরে যুগান্তরের ঘূর্ণিপাকে মাথা উঁচু করে বহন করে নিয়ে যাক আমাদের সংস্কৃতির মুক্তধারাকে, জয় হোক ‘রেডিও ১৯’-এর। জয় হোক বাঙালি সংস্কৃতির।

‘রেডিও ১৯’-এর উপদেষ্টা নাট্যজন শাহাদাত হোসেন খান হিলু বলেন, ‘সুস্থ সংস্কৃতি চর্চায় রেডিও ১৯ এক বিরাট ভূমিকা রাখবে বলে আমি আশাবাদী।’ ‘রেডিও ১৯’-এর উপদেষ্টা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও শিক্ষানুরাগী ইমদাদুল হক সেলিম বলেন, ‘রেডিও ১৯ হবে তারুণ্যের আর তারুণ্য সব সময় এগিয়ে। রেডিও ১৯ তারুণ্যের কথা বলবে, মুক্তিযুদ্ধের কথা বলবে, বাংলার মাটি ও মানুষের কথা বলবে, এই আশাবাদ ব্যক্ত করি।’

‘রেডিও ১৯’-এর অনুষ্ঠানপ্রধান মো. আসাদুজ্জামান রুবেল বলেন, ‘বাংলাদেশের শিল্প-সংস্কৃতিকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতেই আমাদের প্রয়াস, রেডিও ১৯-এর সঙ্গেই থাকুন।’

রেডিওটি অনলাইনে www.radio19bd.com এই ওয়েবসাইট থেকে সরাসরি শোনা যাবে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:০৫ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২৩, ২০১৮