|

অনলাইনে রমরমা দেহ ব্যবসা, পুলিশের অভিযান

লোক লোকান্তরঃ  রাজধানী ঢাকায় প্রায় কয়েক বছর ধরে চলছিল অনলাইনে দেহ ব্যবসা। চোখ ধাঁধানো ওয়েবসাইট আর বিভিন্ন পোজে যৌন আবেদনের ছবির নিচে দেওয়া থাকতো যোগাযোগের জন্য মোবাইল নম্বর। এভাবেই ব্যবসায় চালিয়ে যাচ্ছিল চক্র গুলো। খবর সংবাদ প্রতিদিনের।

 

গোপন সূত্রে খবর পয়ে পুলিশ অভিযান চালায়। পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিটের ডেপুটি কমিশনার মহম্মদ আলিমুজ্জামান জানান, মাহতাব রফিক অনলাইন ওয়েবসাইট খুলে এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় পেজ খুলে এসকর্ট সার্ভিসের ব্যবসা করছিলেন।

 

পুলিশ এখন পর্যন্ত সোশ্যাল মিডিয়ায় এ ধরনের ৮টি গ্রুপ এবং ৬টি পেজ খুঁজে পেয়েছে যেগুলির অ্যাডমিন ওই রফিক মিঞা। পেজগুলিতে বিজ্ঞাপনের মতো বিভিন্ন বয়সী মেয়েদের প্রোফাইল ও যৌন উদ্দীপক ছবি দেওয়া হত।

 

গ্রাহকরা অনলাইনে প্রোফাইল দেখে তাদের আগ্রহ জানাতেন এবং অত্যন্ত গোপনীয়তা রক্ষা করা হতো এসব অনলাইন গ্রুপ এবং পেজে। মাহতাব রফিকের বিরুদ্ধে আইটি ও পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে।

 

কিছুদিন আগে আগে একটি প্রতিবেদনের সূত্র ধরে অনলাইনে ‘স্কোয়াট সার্ভিস’ ব্যবসা চালানোর বিষয়ে অনুসন্ধান শুরু করে পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিট। অনুসন্ধান করতে গিয়ে পুলিশ বেশ কতগুলি সাইট ও ফেসবুক পেজের সন্ধান পায় যেগুলির মাধ্যমে যৌনকর্মী সরবরাহের বিজ্ঞাপন দেওয়া হচ্ছিল।

 

আলিমুজ্জামান জানান, এ পেজ খুলে যৌনকর্মী সরবরাহের সার্ভিস যেমন দেওয়া হচ্ছিল, একইসঙ্গে আগ্রহী গ্রাহকদের ব্ল্যাকমেল করা হচ্ছিল। এসবের সঙ্গে জড়িত থাকার জন্য পুলিশ সেসময় সাত জনকে আটক করে তাদের বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা ও পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে।

 

সেই প্রক্রিয়ায় সোমবার মাহতাব রফিককে ধরা হয়। এসব সাইট কারা ব্যবহার করতো, কারা কারা এই ব্যবসার সঙ্গে জড়িত, গোটা চক্রকে সন্ধান শুরু করেছে পুলিশ।

 

ছবিঃ প্রতীকী

সর্বশেষ আপডেটঃ ৪:৪৩ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২০, ২০১৮