|

দেহব্যবসায় রাজি না হওয়ায় বন্ধুদের দিয়ে স্ত্রীকে গণধর্ষণ

লোক লোকান্তরঃ  রাজশাহীর বাগমারায় স্বামীর সহায়তায় এক গৃহবধূকে (২০) গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ওসিসিতে নেয় পুলিশ।

 

তিনি উপজেলার হামিরকুৎসা ইউনিয়নের অর্জনপাড়া গ্রামের জুয়েল রানার স্ত্রী। ওই গৃহবধূর দায়ের মামলায় অভিযুক্ত জুয়েল রানাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

 

এছাড়া মামলায় আসামি করা হয়েছে জুয়েলের চার বন্ধুকে। বৃহস্পতিবার দুপুরের পর জুয়েলকে আদালতের মাধ্যমে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।

 

পুলিশ জানায়, অর্জুনপাড়া এলাকার আয়েন উদ্দিনের ছেলে জুয়েল রানা ঢাকার একটি পোশাক কারখানায় কাজ করতো। প্রায় ৮ মাস আগে সেখানকার এক নারী কর্মীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়ায় জুয়েল। এরপর ওই নারীকে বিয়ে করে নিজ গ্রামে চলে আসে।

 

ভুক্তভোগী ওই নারীর অভিযোগ, বাড়িতে নেয়ার পর আমার স্বামী আমাকে দেহব্যবসায় বাধ্য করে। এতে রাজি না হয়ে বিষয়টি প্রতিবেশীদের জানিয়ে আমি তাদের সহায়তা চাই।

 

ক্ষিপ্ত হয়ে গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ৪ বন্ধুকে নিয়ে শোবার ঘরে ঢুকে জুয়েল। রাতভর ওই চারজন ধর্ষণ করে গৃহবধূকে। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে জ্ঞান হারান ওই নারী।

 

পরে গ্রাম্য চিকিৎসক ডেকে স্ত্রীকে সুস্থ করে তোলার চেষ্টা করে জুয়েল। টের পেয়ে প্রতিবেশীরা উপজেলার ভাগনদী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে খবর দেন। বুধবার সকালে পুলিশ গিয়ে ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নেয়। সেইসঙ্গে অভিযুক্ত জুয়েলকে গ্রেফতার করা হয়।

 

বাগমারা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছিম আহম্মেদ বলেন, স্বামী ও তার চার সহযোগীকে আসামি করে মামলা করেছেন ওই গৃহবধূ। বৃহস্পতিবার দুপুরের পর অভিযুক্ত জুয়েলকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। তবে তার চার সহযোগী পলাতক। তাদের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:৩২ পূর্বাহ্ণ | এপ্রিল ২০, ২০১৮