|

ময়মনসিংহে কাল বৈশাখী ঝড় ও শিলা বৃষ্টিতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

ফুলবাড়ীয়া ব্যুরো : ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার উপর দিয়ে সোমবার দিবাগত রাতে বয়ে যাওয়া কাল বৈশাখী ঝড় ও শিলা বৃষ্টিতে বোরো ধান, সবজি, আম ও বিদ্যুৎ লাইনের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। শিলাবৃষ্টির কারণে অনেক কৃষকের মাথায় পড়েছে হাত । দুইদিন যাবত ৫টি ইউনিয়নে বিদ্যুৎ সংযোগ থেকে বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

 

সরেজমিনে ফসলের মাঠ ঘুরে দেখাগেছে, ফসলের মাঠে ধান নেই শীষগুলো ঠায় দাড়িয়ে আছে। কৃষকের বিভিন্ন সবজি নষ্ট হয়ে গেছে, সোনালী আঁশ পাটের ক্ষেতগুলো মাটিতে শুয়ে আছে, ধান ক্ষেতের আইলে পড়ে আছে। গাছের নিচে কাঁচা পাতা ও আম পড়ে স্তপ হয়ে রয়েছে।

 

কৃষকরা জানিয়েছেন ধানের শীষে যে সকল ধান দেখা যাচ্ছে সেগুলো ধান নয় চিটা। এখন আবহাওয়া শুস্ক হলে কেটে খড় শুকানো ছাড়া আর কোন উপায় নেই। অনেক কৃষক মাঠে ধান কাটার জন্য কাঁচি নিয়ে যেতে পারবেন না। গরিব কৃষকদের মাথায় হাত পড়েছে। কৃষি বিভাগ ক্ষতি নিরূপনের জন্যে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। অনেক কাঁচা ঘরবাড়ী ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ঝড়ে উড়ে গেছে। শিলের আঘাতে অনেকের ঘরের টিনের চাল ছিদ্র হয়ে গেছে।

 

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে গেছে, উপজেলার ফুলবাড়ীয়া, রাধাকানাই, কুশমাইল ও বাকতার কিছু অংশে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে, এতে প্রায় ২১৫ হে: জমির ফসল সম্পূন্ন ক্ষতির সম্ভবনা।

 

ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ ফুলবাড়ীয়া জোনাল অফিসের ডিজিএম এমএম আবুল কালাম আজাদ জানান, ২৭ টি খুঁটি, ৩৬ টি ক্রসআর্ম, ৫১টি স্থানে তার, ১৯ টি মিটার ও ১৬ টি ট্রান্সফরমার পুড়ে গেছে। এতে প্রায় ২৪ লাখ টাকার ক্ষতি হতে পারে। ৩৩ কেভি লাইন রাত ১ টার দিকে চালু হয়েছে।

 

গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১টা পর্যন্ত ৯ টি ফিডারের মধ্যে ৪ টি চালু করা সম্ভব হয়েছে। সবগুলো লাইন সচল করতে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানসহ ২১টি টিম মাঠে কাজ করছে।

 

উপজেলা কৃষি অফিসার ড. নাছরিন আক্তার বানু বলেন, আল্লাহ প্রদত্ত দুর্যোগ এটি। ফসলে কৃষকের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। সঠিক ক্ষতি নিরূপনের জন্যে আমাদের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা মাঠে কাজ করছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:০৫ পূর্বাহ্ণ | এপ্রিল ১৮, ২০১৮