|

ময়মনসিংহে বিস্ফোরণে দগ্ধ কুয়েট শিক্ষার্থী শাহীন মারা গেছেন

লোক লোকান্তরঃ  ময়মনসিংহের ভালুকায় একটি ভবনে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধ খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) ছাত্র শাহীন মিয়া মারা গেছেন। তার শরীরের ৮৩ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল।

 

বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান শাহীন।

 

ঢামেক ক্যাম্প পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহীনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য শাহীনের মরদেহ ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে।

 

প্রসঙ্গত, গত শনিবার রাত দেড়’টার দিকে ভালুকার জামিরদিয়া মাস্টারবাড়ি এলাকার আর এস টাওয়ার নামের ওই ছয়তলা ভবনের তৃতীয় তলায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণে ৩য় তলার দেয়াল ও কাঁচের দরজা-জানালাগুলো ভেঙ্গে প্রায় ২০০ মিটার পর্যন্ত দূরত্বে ছড়িয়ে পড়েছিল। এতে তাওহীদুল ইসলাম তপু নামে ২৪ বছর বয়সী এক যুবক ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহত হয়েছিল তিন জন শাহীন মিয়া, দীপ্ত সরকার ও মো. হাফিজ। যাদের মাঝে বুধবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান শাহীন।

 

তাদের চারজনই খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী। একটি টেক্সটাইল মিলে ইন্টার্ন করতে ভালুকায় এসে গত ১০ মার্চ ওই বাসা এক মাসের জন্য ভাড়া নিয়েছিলেন তারা।

 

আরও পড়ুন,  ময়মনসিংহে বহুতল ভবনে বিস্ফোরণের ঘটনায় মামলা, দুটি তদন্ত কমিটি 

 

আরও পড়ুন, ময়মনসিংহে বিস্ফোরণে নিহত তৌহিদুলের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর

 

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:৪০ পূর্বাহ্ণ | মার্চ ২৯, ২০১৮