|

ময়মনসিংহে পুলিশ পরিচয়ে জুস খাইয়ে অজ্ঞান করে অটোরিকশা ছিনতাই!

লোক লোকান্তরঃ  ময়মনসিংহের গৌরীপুরে পুলিশ পরিচয়ে অটোরিকশা থামিয়ে চালককে অজ্ঞান করে অটোরিকশা ছিনতাইয়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার গৌরীপুর থানায় এ অভিযোগ দিয়েছেন অটোচালক মো. জয়নাল আবেদিন।

 

গৌরীপুর থানার ওসি দেলোয়ার আহম্মদ জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে অপরাধীদের শনাক্তকরণ ও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

পুলিশ কর্মকর্তা জানান, সোমবার রাত ৯টায় উপজেলার অচিন্তপুর ইউনিয়নের শাহগঞ্জ বাজার থেকে অটোরিকশায় একজন যাত্রী নিয়ে গৌরীপুর আসছিলেন জয়নাল। গাগলা এলাকায় আসতেই পুলিশের পোশাক পরিহিত ও ওয়াকিটকি হাতে দু’জন ইশারা করে থামতে বলে।

 

থামালে তারা বলে আসামি নিতে হবে। এ সময় অটোরিকশায় থাকা যাত্রীকে অন্য অটোরিকশায় উঠিয়ে দেয়। এরপর কথিত আসামিকে নিয়ে অটোতে উঠে। আসামি পানি চাইলে, জুস বের করে দেয়। এক পর্যায়ে আমাকেও জুস খেতে বলে। জুস খাবে না বলতেই থাপ্পড় মেরে জোরপূর্বক জুস খাওয়ায় জয়নালকে। এরপর সে কিছুই জানে না। এ সময় দুর্বৃত্তরা বুকে, গলায় ও পায়ে উর্পযুপরি ছুরিকাঘাত করে অটোরিকশা নিয়ে পালায় ছিনতাইকারীরা।

 

এলাকাবাসী জানায়, মৃত ভেবে অটোরিকশা চালক জয়নালের শরীরের সব কাপড় খুলে নগ্ন অবস্থায় লক্ষ্যা নদীতে ফেলে দেয় দুর্বৃত্তরা। সকালে গলায় লুঙ্গি পেঁচানো অবস্থায় তাকে দেখতে পায় এলাকাবাসী। তবে সড়ক থেকে নদীতে ফেলার পথে মোবাইলটি রাস্তায় ছিঁটকে পড়ে যায়। মোবাইলের সূত্র ধরেই পরিবারকে খবর দেয় এলাকাবাসী।

 

অটোরিকশা চালকের বাবা আব্দুল গফুর জানান, তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার ছেলে এখনও সুস্থ হয়নি।

 

তিনি বলেন, ৪০ শতাংশ জমি বন্ধক রেখে, একটি গরু ৪০ হাজার টাকায় বিক্রি ও ২০ হাজার টাকা ঋণ করে সংসারের হাল ধরতে বড় ছেলে জয়নালকে অটোরিকশা কিনে দেই। কিন্তু আজ তার আয়ের উৎসও শেষ, ছেলেকে পেলাম অর্ধমৃত অবস্থায়।

 

এ বিষয়ে গৌরীপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাখের হোসেন সিদ্দিকী বলেন, তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

সুত্রঃ যুগান্তর

সর্বশেষ আপডেটঃ ৩:৩৭ অপরাহ্ণ | মার্চ ২৬, ২০১৮