|

ময়মনসিংহের বাস-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-৩, আহত-৭

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ    ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটের বড়বিলা নামকস্থানে আজ দুপুরে যাত্রীবাহি ও সিএনজির (মাহেন্দ্র) মুখোমুখি সংঘর্ষে সিএনজির চালক ও এক মহিলাসহ তিনজন নিহত হয়েছে।

 

এসময় গুরুত্ব আহত ৭ জনের মধ্যে ৫ জনকে ফুলপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং অপর দুই শিশুকে আশংকাজনক অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

 

নিহতরা হলো-সিএনজি চালক ফুলপুর উপজেলার ইমাদপুর গ্রামের আবুল কালাম (৩২), হালুয়াঘাট উপজেলার সুমনিয়াপাড়া গ্রামের শাহের আলী (৬৫) এবং মুক্তাগাছা উপজেলার বড়গ্রাম ইউনিয়নের রঘুনাথপুর গ্রামের লাভলী বেগম (২৫)।

 

হালুয়াঘাট থানার ওসি একেএম মাহবুবুল আলম লোক লোকান্তরকে জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা ইমাম পরিবহনের একটি বাস দুপুর ২টার দিকে ময়মনসিংহ-হালুয়াঘাট সড়কের হালুয়াঘাট উপজেলা বড়বিলা নামকস্থানে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা অপর একটি মাহেন্দ্র সিএনজির সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

 

এতে মাহেন্দ্রর ১০ যাত্রী গুরুত্বর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ফুলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাহের আলী ও লাবলী বেগমকে মৃত ঘোষণা করে এবং দুই শিশু ও সিএনজি চালককে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হলে পথে মারা যায় সিএনজি চালক আবুল কালাম।

 

হতাহতরা সকলেই হালুয়াঘাটের সুমনিয়া পাড়ায় একটি পারিবারিক অনুষ্ঠান শেষে মাহেন্দ্র সিএনজি রিজার্ভ করে মুক্তাগাছা উপজেলার লোহাগড়া গ্রামে যাচ্ছিল। এরা তিনদিন আগে ওই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে মুক্তাগাছা থেকে হালুয়াঘাটের সুমনিয়া পাড়া গ্রামে নিহত লাভলী বেগমের আত্মীয়ের বাড়িতে আসে।

 

এদিকে ফুলপুর হাসপাতালে ভর্তিকৃতরা হলো-মুক্তাগাছা উপজেলার বড়গ্রাম ইউনিয়নের রঘুনাথপুর ও লোহারচর গ্রামের বাবু মিয়া (২৫), রফিকুল ইসলাম (২২), আবির হোসেন (১২), সুমাইয়া (২৫) ও হালুয়াঘাট উপজেলার সুমনিয়াপাড়া গ্রামের শাহের আলীর নাতি রাসেল (১৫) এবং ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তিকৃতরা হলো- নিহত লাভলীর শিশু কন্যা আলভি (৪) ও রঘুনাথপুর গ্রামের মজনু মিয়ার কন্যা ফারিয়া (১০)।

 

ছবিঃ সংগৃহীত

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:১৯ অপরাহ্ণ | মার্চ ১১, ২০১৮