|

নকলের দায়ে বহিষ্কারের পর কেন্দ্রেই পরীক্ষার্থীর আত্মহত্যার চেষ্টা

লোক লোকান্তরঃ  চলমান এসএসসি পরীক্ষা দেয়ার সময় নকলের দায়ে বহিষ্কারের পর এক পরীক্ষার্থী কেন্দ্রের দোতলা থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। প্রথমে তাকে সাভার উপজেলা হাসপাতাল এবং পরে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 

মঙ্গলবার এসএসসির পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের পরীক্ষায় ঢাকার সাভারের ঐতিহ্যবাহী অধরচন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে এই ঘটনা ঘটে। মেয়েটি সাভার গার্লস স্কুলের বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল।

 

শিক্ষার্থীরা জানায়, সাভার উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ওই এসএসসি পরীক্ষার্থী মঙ্গলবার পদার্থবিজ্ঞান পরীক্ষা দিচ্ছিল। সে বাড়ি থেকে পদার্থবিজ্ঞানের ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্র পেয়ে তার উত্তর বাম হাতে লিখে নিয়ে আসে।

 

অধরচন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রতন পিটার গমেজ জানান, সকাল ১১টার দিকে ওই পরীক্ষার্থীর নকল করার বিষয়টি ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা (ম্যাজিস্ট্রেট) মেজবাহ উদ্দিনের নজরে আসে। পরে তার বাম হাতে পদার্থ বিজ্ঞানের ২৫টি এমসিকিউ প্রশ্নের উত্তর লেখা অবস্থায় দেখা যায়।

 

হাতে লেখা উত্তরের সঙ্গে পরীক্ষায় আসা সব প্রশ্নের উত্তর মিলে গেলে বিষয়টি সন্দেহ হয় ম্যাজিস্ট্রেটের। পরে জিজ্ঞাসাবাদ করলে ওই পরীক্ষার্থী জানায়, তার বন্ধুর কাছ থেকে আগের রাতেই প্রশ্নগুলো পেয়েছে সে।

 

এ ঘটনায় মেয়েটিকে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত হয়। আর সে হলের বাইরে এসে ভবনের দ্বিতীয় তলার বারান্দা থেকে হঠাৎ লাফিয়ে পড়ে।

 

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক হিসেবে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্বে থাকা উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মেজবাহ উদ্দিন জানান, মেয়েটির হাতে হাতে লিখে নিয়ে আসা ২৫টি প্রশ্নের উত্তর হুবহ মিলে যাওয়াতেই তার সন্দেহ হয়েছিল।

 

পরীক্ষার্থীর মা বলেন, পরীক্ষা কেন্দ্রে তার মেয়েকে বহিষ্কার করায় সে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। এ সময় তার দুই পায়ের কয়েকটি হাড় ভেঙে গেছে। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য দুপুরে তাকে রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 

সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আমজাদুল হক জানান, মেয়েটির বাম পায়ের হাঁড় ভেঙে গেছে। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 

 

ছবিঃ সংগৃহীত

সর্বশেষ আপডেটঃ ৪:৩৫ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮