|

ময়মনসিংহের সেই কিশোরী ফুটবলারের পরিবারকে ৫ লাখ টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

লোক লোকান্তরঃ  অনূর্ধ্ব-১৫ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ক্যাম্পে ডাক পেয়েছিল ময়মনসিংহের ধোবাউড়ার কলসিন্দুরের রানীপুর গ্রামের মেয়ে সাবিনা ইয়াসমিন। কিন্তু গত ২৬ সেপ্টেম্বর মাত্র তিন দিনের জ্বরে ভুগে না ফেরার দেশে চলে যান দেশের প্রতিশ্রুতিশীল এই কিশোরী ফুটবলার।

 

সাবিনার বাবা অনেক আগেই চলে গিয়েছিলেন না ফেরার দেশে। তিন ভাই-বোনের মাঝে বড় বোনের বিয়ে হয়ে গেছে। ভাই সবার ছোট। ভাই-বোনদের মধ্যে মেঝো সাবিনা কলসিন্দুরের একটি স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। অভাবের সংসারে সাবিনাকে নিয়ে অনেক স্বপ্নই দেখেছিলেন মা ফজিলা বেগম।

 

মেয়ে অনূর্ধ্ব-১৫ জাতীয় ফুটবলে জায়গা করে নিয়ে মায়ের মুখে হাসিও ফুটিয়েছিলেন। কিন্তু সাবিনার অকালমৃত্যুতে যেন অকুল পাথারেই পড়ে যায় পুরো পরিবার।

 

এমন পরিস্থিতিতে সাবিনার দরিদ্র পরিবারের পাশে এসে দাঁড়ালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সাবিনার পরিবারকে পাঁচ লাখ টাকা দিয়েছেন তিনি। তবে টাকাটি সঞ্চয়পত্র হিসেবে থাকবে বলে ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।

 

গত বছরের ডিসেম্বরে ভারতকে হারিয়ে শিরোপা জেতা সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ জাতীয় মেয়েদের দলে ডাক পেয়েছিল সাবিনা। কিন্তু খেলা আর হয়নি তার।

 

কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন বলেন, ‘সাফ ক্যাম্পে ডাক পেয়েছিল সাবিনা। ক্যাম্পেও যোগ দেওয়ার কথা ছিল মেয়েটার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর হলো না। এত কম বয়সে তার চলে যাওয়াটা মেনে নেওয়া যায় না। সাবিনার পরিবার অনেক দরিদ্র। প্রধানমন্ত্রীর এমন উদ্যোগের ফলে এই পরিবারটির অনেক উপকার হবে।’

 

প্রধানমন্ত্রীর সাহায্য পেয়ে তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সাবিনার মা ফজিলা বেগম। তিনি বলেন, ‘স্কুলের ম্যাডাম আমাকে ডেকে টাকার কথা বলেছেন। আমার তো কিছু নেই। এই টাকাটা পেয়ে বড় উপকার হলো। প্রধানমন্ত্রীকে অনেক ধন্যবাদ।’

 

সাবিনার পরিবার ও তাদের দুর্দশার কথা বারবারই উঠে এসেছে বাংলাদেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে। পরবর্তী সময়ে ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সাবিনার পরিবারের জন্য সাহায্য চেয়ে চিঠি পাঠানো হয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে পাঁচ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র দেওয়া হয়েছে সাবিনার মা বেগম জমিলা খাতুনকে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৪:১৫ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮