|

আগে এনজিও মানে মাইক্রো ক্রেডিট বুঝাতো তবে এখন চিত্রটা ভিন্ন

ফাহিম মোঃ শাকিল:  আগে এনজিও মানে মানুষ বুঝাতো মাইক্রো ক্রেডিট অথবা এ জাতীয় বিষয় তবে এখন তা নয়। এখন জিও, এনজিও গুলো সামাজিক ও স্বাস্থ্য বিষয়ে বেশ অগ্রগতি দেখাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন ময়মনসিংহ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুল ইসলাম মোঃ ওয়ালিদ।

 

২৩ নভেম্বর বৃহস্পতিবার ময়মনসিংহে কমিউনিটি লিডারদের নিয়ে বাপাসা’র এডভোকেসি সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে কামরুল ইসলাম মোঃ ওয়ালিদ এ কথা গুলো বলেন।

 

কিশোর কিশোরীদের নিয়ে প্রজনন স্বাস্থ্য বিষয়ক কাজ সহ বিভিন্ন কাজের জন্য তিনি বাপাসা’র দাতা সংস্থা এমব্যাসি অব দা কিংডম অফ দা নেদারল্যান্ড কে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘আমার সদর উপজেলার পক্ষ থেকে যত ধরনের সহযোগীতা প্রয়োজন আমি করব তার পরও আমি চাই কিশোর কিশোরীরা যেন সঠিক তথ্যের অভাবে বিপথগামী না হয়। বর্তমান সময় উপযোগী এবং খুবই গুরুত্বপূর্ন জনগোষ্ঠী কিশোর কিশোরীদের প্রজনন স্বাস্থ্য বিষয়ক কার্যক্রমের মাধমে সরকারের সহযোগী ভূমিকা যথেষ্ট গুরুত্ব বহন করে।’

 

সভায় ইউবিআর-২ প্রজেক্ট, বাপসা ময়মনসিংহের উপজেলা ম্যানেজার এএএম মাহমুদুল হক সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলের উপ-পরিচালক ডাঃ মোঃ আব্দুর রউফ। আরো উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা, এমওএমসিএইস ও সদর মাতৃ সদনের মেডিকেল অফিসারসহ উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

 

বাপসা ও ইউবিআর-২ প্রকল্পের কার্যক্রম এবং ২০১৭ সালের কার্যক্রমের অর্জন তুলে ধরেন এসআরএইসআর ট্রেইনার পিংকু পাল এবং ওয়াইএফএস মাষ্টার ট্রেইনা কাজী ফারহানা আফরোজ।

 

এসময় তারা এসআরএইসআর বিষয়ক ধারনা, কিশোর কিশোরীদের ইউবিআর যুব কেন্দ্র মুখী করা, স্বাছন্দে সেবা কেন্দ্রে আসা এবং সরকারী স্থাপনায় ইউবিআর যুব কর্নার স্থাপন এবং সেখানে যুবদের প্রজনন স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্য ও পরামর্শ পাওয়ার জন্য কমিউনিটি লিডারদের সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা করেন।

 

ছবিঃ লোক লোকান্তর

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:১৬ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ২৩, ২০১৭