|

ব্রহ্মপুত্রের ভাঙ্গণে দু’টি গ্রাম নদগর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার আশংকা, শতাধিক ঘরবাড়ী বিলীন হয়ে গেছে

স্টাফ রিপোর্টার : ময়মনসিংহ সদরে অষ্টধার ইউনিয়নের ঝাপারকান্দা ও রেহাই তারাপুর গ্রামসহ আশপাশ এলাকা ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙ্গনে চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে দু’টি গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক মানুষ। ইতোমধ্যে শতাধিক ঘরবাড়ী নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

 

এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে মরহুম মুক্তিযোদ্ধা আহাম্মদ আলীর পুত্র জাফরকান্দা গ্রামের বাসিন্দা আপেল মাহমুদ ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে রক্ষার জন্য জেলা প্রশাসক, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলীসহ বিরোধী দলীয় নেত্রী ও ধর্ম মন্ত্রীর কাছে আবেদন করেছেন। বলা হচ্ছে হচ্ছে ময়মনসিংহ সদরে অষ্টধার ইউনিয়নস্থ ঝাপারকান্দা ও রেহাই তারাপুর গ্রাম ২টি ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে অবস্থিত।

 

এ গ্রামগুলোতে ৩টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১০টি মসজিদ, ৫টি মাদ্রাসা, ২ একর জায়গা জুড়ে একটি কেন্দ্রীয় কবরস্থান, ২টি ঈদগাহ মাঠ, ১২ কিলোমিটার দীর্ঘ বিদ্যুৎ লাইন, প্রায় ৭ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা ও ২ কিলোমিটার পাকা রাস্তা রয়েছে। জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ২০ টি পরিবার অত্র এলাকায় বসবাস করে।

 

নদের ভয়াবহ ভাঙ্গনে সকল গ্রামবাসীর ন্যায় তাদের বসতভিটাসহ সকল সহায়-সম্পদ নদ গর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ইতোমধ্যে ভাঙ্গন কবলিত অনেকেই এখন গ্রাম ছাড়া। অনেকে মানবেতর জীবন যাপন করছে। চরম আতংক ও উৎকন্ঠার মধ্যে ব্রহ্মপুত্র তীর ঘেঁষা বসবাসকারী মানুষজন দিন কাটাচ্ছে।

 

যেকোন মুহুর্তে নদের ভাঙ্গনের শিকার হয়ে তাদের সব হারানোর সম্ভাবনা রয়েছে। প্রতিনিয়ত ভাঙ্গন অব্যাহত রয়েছে। হুমকির মুখে অবস্থানকারী দুই গ্রামের ৩০ হাজার মানুষসহ পাশর্^বর্তী এলাকার আরও ২০ হাজারেরও অধিক মানুষকে মানবিক কারণে রক্ষার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। এ ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শনে কেউ যাননি; এতে সাধারণ মানুষের মনে নানা প্রশ্নের দানা বেঁধেছে।

 

আবেদনকারী এলাকাবাসীর পক্ষে দাঁড়ানোর জন্য আপনার সাহায্য ও সহানুভূতি কামনা করেছেন এবং ইতোমধ্যে ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করে তাদেরকে পুনর্বাসনের জন্য অনুরোধ জানিয়ে। স্থানীয় ইউ.পি. চেয়ারম্যান ও নির্বাচিত অন্যান্য প্রতিনিধিগণ এ দুঃখ দুর্দশার চিত্র ভালভাবেই জানেন। কিন্তু তারা কোন রকম প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেন নাই।এতে আমরা গ্রামবাসী অত্যন্ত মর্মাহত বলে জানা গেছে।

 

সর্বশেষ আপডেটঃ ১১:৫৯ পূর্বাহ্ণ | জুলাই ১৮, ২০১৭