|

লালমনিরহাটের বোতল বাড়িকে ঘিরে ঈদ উৎসব

লোক লোকান্তর :লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের প্রত্যন্ত নওদাবাস গ্রামের শিক্ষক দম্পতি রাশদেুল আলম ও আসমা খাতুনের প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে তৈরী বাড়িকে ঘিরে পালিত হচ্ছে ঈদ উৎসব। পবিত্র ঈদুল ফিতরে পরিবার পরিজন নিয়ে এক নজর দেখতে বিনোদনপ্রেমীদের ঢল নেমেছে বোতল বাড়িতে।

 

 

বিভিন্ন জেলা শহর থেকে মাইক্রোবাস, সিএনজি, অটোরিকশা, মোটরসাইকেলে করে লাখো মানুষ ছুটে আসছেন। ব্যস্ত হয়ে পড়ছেন সেলফি তুলতে। ওই বাড়ির পাশেই বসেছে সাইকেল ও মটরসাইকেল গ্যারেজ। বসেছে বিভিন্ন দোকানপাট আর বেচাকেনাও চলছে তুমুল। বোতল বাড়ি দেখতে আসা মানুষদের সুবিধার্থে চন্দ্রপুর বাজারের মোড়ে একজন দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন।

 

 

প্রায় ১৭শ’ স্কয়ার ফুট বাড়িটির তৈরির কাজ এখনো শেষ হয়নি। চলতি বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি ইটের ব্যাবহার ছাড়াই বাড়টি নির্মাণ কাজ শুরু করেন পরিবেশবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী দম্পতি রাশেদুল আলম ও আসমা খাতুন। বাড়িটি নির্মাণে এক লিটার, আধা লিটার ও ২৫০ মিলিলিটারের খালি প্লাস্টিকের (পিইটি) ৮০ হাজার বোতল ব্যবহৃত হয়েছে।

 

 

বোতল বাড়িটিতে চার রুমের থাকার ঘর, দুটি বাথরুম, রান্নাঘর ও বারান্দা তৈরিতে সর্বত্র বিভিন্ন সাইজের  বোতল ব্যবহার করা হয়েছে। এমনকি বাথরুমের সেফটি ট্যাংক ও মেঝেতেও ব্যবহার করা হয়েছে প্লাস্টিকের বোতল। প্লাস্টিকের বোতলে বালি ঢুকিয়ে তা ইট হিসেবে সিমেন্ট দিয়ে লাগানো হয় বাড়ির কাজে। বোতলে বালি ব্যবহার করায় বোতল স্বাভাবিক ইটের তুলনায় ১৫ থেকে ২০ গুণ বেশি শক্ত হয় বলে দাবি করেন রাশেদুল।

 

 

রাশেদুল আলম ও আসমা খাতুন জানান, এ ধরনের বাড়ি শীত ও গ্রীষ্মকালে পরিবেশ অনুকূল থাকবে। অর্থাৎ শীতকালে উষ্ণ এবং গ্রীষ্মকালে শীতল থাকবে। এছাড়া প্লাস্টিকের বোতলে বালি ভরা থাকায় আগুন ও বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট হওয়া থেকে নিরাপদ থাকবে। কখনো আগুন লাগলে তা অন্যত্র ছড়াবে না। বরং যেখানে আগুন লাগবে, সেখানকার বোতলের বালুতে আগুন নিভে যাবে।

 

 

কালীগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী ৫ নং চন্দ্রপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘বোতল বাড়ি দেখতে আসা মানুষের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। ঈদ উপলক্ষে অসংখ্য মানুষ ভিড় লক্ষণীয়।’ আর দেশে প্রথম প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে বাড়ি নির্মাণ করে আলোড়ন সৃষ্টিকারী রাশেদুল বলেন, ‘বিভিন্ন জেলা থেকে লাখেরও বেশি মানুষ বাড়িটি দেখতে এসেছে। দ্রুত বাড়িটির নির্মাণ কাজ শেষ করব বলে আশা করছি।’

সর্বশেষ আপডেটঃ ১২:০১ অপরাহ্ণ | জুন ২৮, ২০১৭