|

সর্বশেষ

পাহাড় থেকে বন্যহাতির দল লোকালয়ে অবস্থান করায় আতংক গ্রামবাসী

আবারও শেরপুরে বন্যহাতির আক্রমনে নিহত ৩

এম খলিলুর রহমান, ঝিনাইগাতীঃ   শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলা সীমান্তবর্তী এলাকায়  বৃহস্পতিবার রাত ৯ টায় গুরুচরণ দুধনই এলাকায় বন্যহাতির দল প্রবেশ করে। রাত ৯টা থেকে অনেক ঘর-বাড়িতে বন্যহাতি তান্ডব চালায়। এতে বন্যহাতির আক্রমনে  গুরুচরণ দুধনই এলাকার জহুরুল হক (৫০) ও সুন্নত আলীর স্ত্রী আইতুন নেছা (৪৫) এবং একই গ্রামের আব্দুল হাই (৫৫) নিহত হয়েছেন।

বন্যহাতির দল এখন গুরুচরণ দুধনই এলাকায় অবস্থান করে বিভিন্ন স্থানে তান্ডব চালাচ্ছে। এতে গ্রামবাসী ভয়ে নিদ্রাহীন জীবন-মরণ শঙ্কার মধ্যে রাত কাটাচ্ছেন। আবারও যে কোন সময় বন্যহাতির আক্রমনের স্বীকার হতে পারে।

 

গত ১ মাস যাবত বন্যহাতির তান্ডবে ৮জনের প্রাণ হানি ও ১৫জন আহত হয়েছে বলে জানা যায়। চলতি সপ্তাহে শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার বাকাকুড়া গ্রামের কেন্তরাম সাংমার ছেলে বাসিরাম চাম্বুগং (৬০) নামের এক আদিবাসী কৃষক নিহত হয়। পার্শ্ববর্তী বাড়িতে তান্ডবের সময় আরও ২জন গুরুতর আহত হয়। আহতরা হলো, বাকাকুড়া গ্রামের মাক্কু মিয়ার ছেলে হাবিবুল্লাহ (২৮) ও একই গ্রামের হিরামনির ছেলে নরেন মারাক (২৬)। আহতদেরকে গুরুত্বর অবস্থায় চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন থেকে অত্র এলাকায় হাতির আক্রমণে বহু লোকের প্রাণহানি ঘটনা ঘটছে। বন্যহাতির দল এখনও বাকাকুড়া গ্রামেই অবস্থান করছে। রাতে আবারও বন্যহাতির আক্রমনের আশংকা করছে এলাকাবাসী। প্রশাসন থেকে তেমন গুরুত্বপূর্ন পদক্ষেপ না নেওয়া প্রাণহানির সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। এমন পরিস্থিতি চলতে থাকলে অত্র এলাকার লোকজন ভয়ে গ্রাম ছেড়ে অন্যত্রে পালাতে বাধ্য হবে। এমনিতেই বন্যহাতির ভয়ে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে। তারপরও শেষ রক্ষা না হওয়ায় বন্যহাতির সীমান্তবাসীরা দিবানীশি আতংকের মধ্যে রয়েছে। বসত-বাড়ী ও ফসলের ক্ষতি সাধন করে চলেছে বন্যহাতির দল। এব্যাপারে রাংটিয়া রেঞ্জের তাওয়াকোচা বিট অফিসার আশরাফুল আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। ঝিনাইগাতী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো: আজিজুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।
 

উক্ত বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সেলিম রেজার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এটা সত্যিই অত্যান্ত দু:খ জনক। মাত্র দু’দিনের ব্যবধানে বন্যহাতির তান্ডবে আরও ৩জনের প্রাণহানি ঘটল।

 

প্রকাশ থাকে যে, বন্যহাতির আক্রমনে নিহতদের পরিবারদের সমবেদনা জ্ঞাপনের জন্য শেরপুর-৩ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য এ.কে এম ফজলুল হক চাঁন বাকাকুড়া গ্রামে যান। নিহত ও আহতদের পরিবারকে শান্তনা দেন এবং আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন।

 

কিন্তু এলাকাবাসী মাননীয় সংসদ সদস্যের নিকট জোর দাবী জানান, অবিলম্বে অত্র এলাকাবাসীদের জান-মাল বন্যহাতির আক্রমন থেকে যে ভাবে রক্ষা করা যায় তার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।

 

ছবিঃ সংগৃহীত

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ১:২৭ পূর্বাহ্ণ | অক্টোবর ১৪, ২০১৬