|

বাংলাদেশে এই প্রথম ত্রিশালে গাছ পরিচর্যায়

হেলথ কার্ড ও শিক্ষার্থীদের বিনামুল্যে ৩ লক্ষ চারা বিতরন

trishal-pic-3

এইচ.এম জোবায়ের হোসাইন, ত্রিশালঃ  বাংলাদেশে এই প্রথম বৃক্ষ রোপনের পাশাপাশি রক্ষনাবেক্ষন ও তরুন সমাজকে গাছের পরিচর্যা প্রতি আগ্রহী করে তুলতে চালু করলেন ট্রি হেলথ কার্ড। ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এ কার্ডের উদ্ভাবন করলেন ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু জাফর রিপন।

শনিবার সকালে উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় এক যোগে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মাঝে ফলজ বনজ ও ঔষধি গাছের চারা বিতরন করা হয়।

সকাল ৭টায় স্থানীয় নজরুল একাডেমী মাঠে এ কর্মসূচীর উদ্ভোধন করেন ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক মোঃ খলিলুর রহমান। ত্রিশাল উপজেলা ধানীখোলা উচ্চ বিদ্যালয়, বইলর রহমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়,কালির বাজার উচ্চ বিদ্যালয়, আহম্মদাবাদ উচ্চ বিদ্যালয়, রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়, নজরুল একাডেমী, মোহাম্মদপুর উচ্চ বিদ্যালয়, সাখুয়া উচ্চ বিদ্যালয়, গুজিয়াম আমিরাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়, সানকিভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়, পোড়াবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়সহ ১১টি পয়েন্ট ভাগ করে শিক্ষার্থীদের একত্রিত করে একযোগে এ চারা হাতে তুলে দেয়া হয়। সাথে দেয়া নতুন উদ্ভাবিত একটি হেলথ কার্ড। শিক্ষার্থীরা গাছের পরিচর্যা করে এ কার্ড গুলো প্রতি মাসে প্রতিষ্ঠানকে অবহিত করবে।

উপজেলা প্রশাসনের এমন উদ্যোগে সবুজ বনায়ন ও পরিচর্যায় ব্যপক সাড়া পরেছে উপজেলা ব্যপী। শিক্ষার্থী অভিভাবক সহ পরিবারের সদস্যরা সরবরাহকৃত চারাটি রক্ষনাবেক্ষনে গুরুত্ব দিচ্ছে।

উপজেলার ইসলামী একাডেমীর ১০ শ্রেনীর শিক্ষার্থী ফারহানা বলেন, আমি চারাটি পেয়ে মহা খুশি। বাড়িতে নিয়ে যাবার পর  আমার বাবা চারাটি রোপন করে এবং চারদিকে আবৃত করে দেয়। এখন আমি গাছটিতে নিয়মিত পানি দিয়ে পরিচর্যা করি। আমার গাছটি বড় হলে আমি স্কুল থেকে পুরস্কার পাব।

শুকতারা বিদ্যানিকেতনের প্রধান শিক্ষক কামাল হোসেন আকন্দ জানান, আমার প্রতিষ্ঠানে সাড়ে সাতশ শিক্ষার্থীর মাঝে তিনটি করে চারা বিতরন করা হয়। চারা পেয়ে শিক্ষার্থীরা মহা খুশি এবং ট্রি হেলথ কার্ডের মাধ্যমে ব্যপক অনুপ্রেরনা পেয়েছে। শিক্ষার্থীরা গাছের পরিচর্যার ব্যপারে আগ্রহ প্রকাশ করে।

নজরুল একাডেমীর প্রধান শিক্ষক মেছবাহ উদ্দিন  বলেন আমার প্রতিষ্ঠানের ১৫শত ছাত্র আজ চারা হাতে পেয়ে অনেক আনন্দিত। এমনকি অনেকের অভিভাবক সাথে এসে চারা নিয়ে গেছে। হেলথ কার্ড বিতরনের মাধ্যমে গাছের পরিচর্যা করার ব্যপারে অভিভাবক মহলে ব্যপক উৎসাহের সৃষ্ঠি হয়েছে।

উপজেলার সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদ আমীন বলেন, আমার ইউনিয়নে প্রায় ১০ হাজার শিক্ষার্থীর হাতে গাছের চারা তুলে দিয়েছি। এ সবুজ বনায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ করার একটি যুগান্তকারী প্রয়াস।

ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু জাফল রিপন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সবুজ বনায়নের প্রতি নির্দেশনা বাস্তবায়নের লক্ষে আমরা উপজেলা প্রশাসন থেকে এক যোগে ৩ লক্ষ পাঁচ হাজার চারা বিতরন করি। এবং এ গাছ যাতে অযত্নে মরে না যায় সে ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের উৎসাহী করতে বাংলাদেশে এই প্রথম আমরা চালু করি ট্রি হেলথ কার্ড। এতে শিক্ষার্থী অভিভাবক ও সাধারন জনগনের মাঝে গাছের পরিচর্যার ব্যাপারে আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:০৮ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ০১, ২০১৬