প্রেক্ষাগৃহে চলছে ‘আয়নাবাজি’

অনলাইন ডেস্কঃ  শুক্রবার থেকে রাজধানীসহ দেশের মোট ২১টি প্রেক্ষাগৃহে চলছে ‘আয়নাবাজি’। তবে সারাদেশের গুরুত্বপূর্ণ প্রেক্ষাগৃহেই যাচ্ছে। এক সপ্তাহ পর দর্শকদের প্রতিক্রিয়া দেখেই বোঝা যাবে সিনেমাটি কত দিন চলবে। এ ধরনের ছবি যদি হতে থাকে তাহলে হলের পরিবেশ পরিবর্তন হতে বাধ্য।’- বললেন ছবিটির নির্মাতা অমিতাভ রেজা।

এই চলচ্চিত্রে প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী ও উপস্থাপিকা মাসুমা রহমান নাবিলা। রাশেদ জামানের সিনেমাটোগ্রাফি, ইকবাল কবির জুয়েলের সম্পাদনা এবং রিপন নাথের সাউন্ড করেছেন।

সিনেমার মূল কাহিনী ও ভাবনা গাউসুল আলম শাওনের। চিত্রনাট্য লিখেছেন অনম বিশ্বাস ও গাউসুল আলম শাওন। আয়নাবাজিতে আরও অভিনয় করছেন লুত্ফর রহমান জর্জ, শওকত ওসমান, গাউসুল আলম শাওন, এজাজ বারী প্রমুখ।

কনটেন্ট ম্যাটার লিমিটেড প্রযোজিত এবং হাফ স্টপ ডাউন লিমিটেড নিবেদিত ‘আয়নাবাজি’র নির্বাহী প্রযোজক এশা ইউসুফ। গানগুলো তৈরি করেছেন ফুয়াদ, অর্ণব, হাবিব ও চিরকুট ব্যান্ডের সদস্যরা।

এর মধ্যে রাজধানীর সিনেপ্লেক্স, ব্লকবাস্টার, বলাকা, শ্যামলীসহ দেশের মোট ২১টি প্রেক্ষাগৃহে সিনেমা হলে চলছে ছবিটি।

শুক্রবার বলাকায় সকাল সাড়ে ১০টায় ছিল প্রথম শো। অসংখ্য ভিড়, অনেকেই টিকিট খুঁজছেন। কিন্তু ততক্ষণে টিকিট কাউন্টার বন্ধ হয়ে গেছে।
বলাকা প্রেক্ষাগৃহের ব্যবস্থাপক আকতার বললেন, ‘বেশির ভাগ টিকিট বৃহস্পতিবার শেষ হয়েছে। অল্প কিছু টিকিট আজ বিক্রি করছি।’
‘আয়নাবাজি’ দেখার সময় দর্শকের মধ্যে উচ্ছ্বাস ছিল লক্ষণীয়। অমিতাভ রেজা পরিচালিত এই ছবিতে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, নাবিলা, আরিফিন শুভ, পার্থ বড়ুয়াসহ অনেকে।