|

জাতীয় পরিচয়পত্র হারিয়ে গেলে যা করা উচিত

photo-1473964399cv

বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে একজন মানুষের অন্যতম পরিচয় তাঁর জাতীয় পরিচয়পত্র। যদিও নির্বাচন কমিশন (ইসি) এখনো পর্যন্ত কোনো কাজের জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বাধ্যতামূলক করেনি। তারপরও ব্যাংক হিসাব, পাসপোর্ট থেকে শুরু করে ড্রাইভিং লাইসেন্স করাসহ নানা কাজ এনআইডি ছাড়া হয় না।

আর এর গুরুত্ব সম্পর্কে আমরা অনেকেই সচেতনও না। এমন অনেক নাগরিক আছেন যাঁদের এনআইডি কবে হারিয়ে গেছে তা তিনি নিজেও জানেন না। অথচ ওই হারানো এনআইডির জন্য তাঁর জীবনে যেকোনো সময় নেমে আসতে পারে ভয়াবহ বিপদ।

বর্তমানে সারা দেশে রয়েছে জঙ্গি আতঙ্ক। একবার ভাবুন তো, আপনার হারিয়ে যাওয়া জাতীয় পরিচয়পত্রটি যদি কোনো জঙ্গি সংগঠনের হাতে পড়ে থাকে, তাহলে কী অবস্থা হতে পারে আপনার! কোনো জঙ্গি অপরাধ সংঘটনের পর যদি আপনার পরিচয়পত্র ঘটনাস্থলে রেখে আসে? তাহলে আইনি জটিলতার শেষ নেই। যে কোনো সাধারণ অপরাধীরাও আপনার হারিয়ে যাওয়া আইডি কার্ড ব্যবহার করে অঘটন ঘটাতে পারে। তাই জাতীয় পরিচয়পত্র হারিয়ে গেলে সঙ্গে সঙ্গে থানায় গিয়ে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করুন।

জাতীয় পরিচয়পত্র হারিয়ে গেলে করণীয় কী তা সম্পর্কে সবার জানা দরকার। আসুন এ বিষয়ে ইসির কিছুর প্রশ্ন ও তার উত্তর জেনে নিই।

প্রশ্ন : জাতীয় পরিচয়পত্র হারিয়ে গেছে। কীভাবে নতুন কার্ড পেতে পারি?

উত্তর : নিকটতম থানায় জিডি করে জিডির মূল কপিসহ সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ে অথবা ঢাকায় জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগে আবেদন করতে হবে।

প্রশ্ন : হারানো আইডি কার্ড পেতে বা তথ্য সংশোধনের জন্য কি কোনো ফি দিতে হয়?

উত্তর : আগে হারানো কার্ড পেতে কোন প্রকার ফি দিতে হতো না। ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ থেকে হারানো আইডি কার্ড পেতে/সংশোধন করতে সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ফি ধার্য করা হয়েছে।

প্রশ্ন : হারানো ও সংশোধন একই সঙ্গে করা যায় কি?

উত্তর : হারানো ও সংশোধন একই সঙ্গে সম্ভব নয়। আগে হারানো কার্ড তুলতে হবে, পরে সংশোধনের জন্য আবেদন করা যাবে।

প্রশ্ন : হারিয়ে যাওয়া আইডি কার্ড কীভাবে সংশোধন করব?

উত্তর : প্রথমে হারানো আইডি কার্ড উত্তোলন করে তারপর সংশোধনের আবেদন করতে হবে।

প্রশ্ন : প্রাপ্তি স্বীকারপত্র/স্লিপ হারালে করণীয় কী?

উত্তর : স্লিপ হারালেও থানায় জিডি করে সঠিক ভোটার আইডি নম্বর দিয়ে হারানো কার্ডের জন্য আবেদনপত্র জমা দিতে হবে।

প্রশ্ন : প্রাপ্তি স্বীকারপত্র/জাতীয় পরিচয়পত্র হারিয়ে গেছে কিন্তু কোনো কাগজ নেই বা জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর/ভোটার নম্বর/ স্লিপের নম্বর নেই, সে ক্ষেত্রে কী করণীয়?

উত্তর : সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা/জেলা নির্বাচন অফিস থেকে ভোটার নম্বর সংগ্রহ করে জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন শাখা/উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ে আবেদন করতে হবে।

প্রশ্ন : জাতীয় পরিচয়পত্রে নেই কিন্তু তথ্য পরিবর্তিত হয়েছে এমন তথ্যাদি পরিবর্তন কীভাবে সম্ভব?

উত্তর : জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগে এ সংক্রান্ত কাগজপত্রাদিসহ আবেদন করলে যাচাই-বাছাই করে বিবেচনা করা হবে।

সৌজন্যেঃ এন টিভি

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ১:৪৯ পূর্বাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৬