|

ঈদুল আজাহা উপলক্ষে ব্যাস্ত সময় পার করছে কামাররা

অনলাইন ডেস্কঃ   পেশাদার কামারদের কামারশালাগুলো এখন লোহার নানা জিনিস তৈরীর টুংটাং শব্দে মুখর হয়ে উঠেছে। কামাররাও তাদের ব্যবসার ব্যস্ত সময় পাড় করছে। কেননা সামনেই ঈদুল আজহা। কোরবানীর জন্য দা, বিভিন্ন সাইজের চাকু, ছোড়া ও বটির এখন ভীষণ চাহিদা। ফলে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে কামারা।

ক্ষুদ্র লৌহজাত শিল্পের উপর নির্ভরশীল শেরপুরের নকলার গ্রামগঞ্জের হাট-বাজারগুলোতেও এমনটাই দেখা যাচ্ছে। কোরবানীর সরঞ্জাম বিক্রির নতুন দোকান বসেছে। ক্রেতারাও প্রয়োজন মত দেখে শুনে কিনছে তাদের কোরবানীর সরঞ্জাম। এদিকে ঈদে দা, বটি, ছোরা, চাকুর চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় তৈরীর সরঞ্জাম কাঁচা লোহার দামও বাড়িয়ে দিয়েছে ব্যবসায়িরা। ফলে কামারদের বেশী দামে কিনতে হচ্ছে কাঁচা লোহা। এতে এসব সরঞ্জাম তৈরীর উৎপাদন ব্যয়ও অনেক বেড়ে গেছে। এজন্য সংগত কারণেই ক্রেতারা বেশী দামে কিনতে বাধ্য হচ্ছে কোরবানী ঈদের অতি প্রয়োজনীয় এসব সরঞ্জামাদী।
নকলা হাজী জালমামুদ কলেজ রোডের কামার মোঃ নজরুল ইসলাম জানায়, এখন অল্প স্বল্প বেচাকেনা শুরু হলেও ঈদের তিনদিন আগে থেকেই বিক্রি আরও কয়েক গুণ বেড়ে যাবে। সাধারণ লোকেরা নিজেরাও লোহা এনে দা, চাকু ও ছুরি বানিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।

এদিকে ঈদ উপলে মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় কোরবানির একটি ছোরা ৫শ থেকে ৭শ টাকা’, বিভিন্ন সাইজের চাকু ৭০ থেকে ১২০ টাকা, বটি ২শ’ থেকে ৪৫০ টাকা, দা ৪শ থেকে ৬শ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। তবে দাম আরও বাড়তে পারে বলে তিনি আশা করেন।

ছবিঃ প্রতীকী

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৬:২৯ পূর্বাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ০৩, ২০১৬