|

কটিয়াদী অবৈধভাবে বালু উওোলন চলছে

katiadi-balu pi

ছাইদুর রহমান নাঈম, নিজস্ব প্রতিবেদক কটিয়াদী থেকে ঃ
কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী আড়িয়াল খা নদীসহ উপজেলার বিভিন্ন স’ান থেকে অবৈধ ভাবে বালু উওোলন করা হচ্ছে। দীর্ঘ দিন যাবত এ অপকর্ম চলে আসলেও এর কোন প্রতিকার মিলছেনা। মসুওয়া ইউনিয়নের বৈরাগিচর, কাজিরচর গ্রামে আড়িয়াল খা নদী থেকে অবৈধ ভাবে দিন রাত অবাধে বালু তোলা হচ্ছে। এছাড়াও চরনোয়াকান্দি , মুমুরদিয়া, পাইকসাসহ বিভিন্ন স’ানে বালু উওোলন হচ্ছে।ওই সব বালু উওোলন কারিদের বিরুদ্ধে প্রশাসন কোন কঠোর ব্যবস’া না নেওয়ার কারনে দিনকে দিন তাদের এ অপকর্ম নিয়ন্ত্রনহীন হয়ে উঠেছে। সরকারী নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে অবৈধ ভাবে বালু উওোলনের ফলে বৈরাগিচর গ্রামে নদীর তিরবর্তী একটি উচ্চ বিদ্যালয়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আবাদি জমি, বাজার ,বাড়ি ঘড় সহ বিভিন্ন গুরুত্বপুর্ণ স’াপনা আজ হুমকীর সম্মুখীন হয়ে পড়েছে। বর্তমান সরকার মানুষের চলাচলের কষ্ট লাঘবে পাকা রাস্তা নিমার্ণ করলেও অবৈধ বালু নেবার ট্রাক প্রতিদিন চলাচলের ফলে গ্রামীন রাস্তাঘাট ভেঙ্গে একাকার হয়ে মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। সরেজমিনে বৈরাগিচর গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে নদী থেকে অবাদে বালু তোলে বিশাল স্তুপ করছে এবং ট্রাকে করে বালু বিক্রি হচ্ছে। এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, বৈরাগিচর গ্রামের কতিপয় কিছু লোক একটি স্বার্থন্বেষী মহলকে ম্যানেজ করে দীর্ঘ দিন দাপটের সাথে নদী থেকে অবাধে বালু তোলছে। । এ দিকে মুমুরদিয়া ইউপির উওর মুমুরদিয়া গ্রামে আবু হানিফ তারা মিয়া তার জমি থেকে বালু উওোলনের ফলে পাশ্ববর্তী অন্যান্য কৃষকের জমি ভাঙ্গনের সৃষ্টি হচ্ছে বলে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে এক কৃষক।
এ বিষয়ে কটিয়াদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী মেজিস্ট্রেট মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন, অবৈধ বালু উওোলনের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস’া গ্রহন করা হবে।
বালু উওোলন কারীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনত ব্যবস’া নেওয়া ও ড্রেজার জব্দের সাথে অবৈধ ভাবে মজুতকৃত বালু জব্দ করে নিলামে বিক্রি দিলে সরকারের রাজস্ব বাড়বে এবং বালু উওোলন কিছুটা হলেও বন্ধ হবে বলে প্রত্যাশা এলাকাবাসীর।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:১২ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১৩, ২০১৬