|

শ্যামগঞ্জ জমজম ফিলিং ষ্টেশনে হামলা ভাংচুর সারে ৪ লক্ষ টাকা লুটের অভিযোগ।

mithun pt

 

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিঃ ৩০ জুলাই ২০১৬, শনিবার
শুক্রবার সকালে পূর্বধলা উপজেলার শ্যামগঞ্জ ফিলিং ষ্টেশনে প্রতিপক্ষ হামলা চালিয়ে পেট্রোল পাম্পের ৬টি মিটার মেশিন ভাংচুর করে পালিয়ে যায়।
জমজম ফিলিং ষ্টেশনের ক্যাসিয়ার ইমন মিয়া জানান শুক্রবার সকাল পোনে ১০টার দিকে প্রতিপক্ষ রফিকুল ইসলাম অতরকিতে জমজম ফিলিং ষ্টেশনে প্রবেশ করে ক্যাসিয়ার সহ দুই কর্মচারী খোকন ও বাবুল মিয়াকে অফিসে তালাবদ্ধ করে ৬ টি মিটার মেশিন ভাংচুর করে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে শ্যামগঞ্জ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক এস আই মোজাম্মেল হক পূর্বধলা থানার ও সি আব্দুর রহমান ঘটনা স’ল পরিদর্শন করেন।
পরে খবর পেয়ে জমজম ফিলিং স্টেশনের মালিক হাজী খায়রুল আমীন ময়মনসিংহ থেকে ছুটে আসেন। তিনি জানান
ভারাটিয়া রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে গতকাল গৌরীপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করার পরিপেক্ষতে ক্ষিপ্ত হয়ে সে এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে। তিনি আরো জানান এ সময় পেট্রোল পাম্পের কেশ থেকে ৪ লৰ ৫৫ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে গেছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন।
অপর দিকে প্রতিপৰ রফিকুল ইসলাম জানান তার বিরুদ্ধে টাকা লুটের ঘটনা মিথ্যা দাবী করে বলেন আমাকে অন্যায় ভাবে কফি হাউজ বন্ধ করে উচ্ছেদের চেষ্টা করা হয়েছে। এবং আমার প্রতিষ্ঠান ভাংচুর করে মালিক পৰের লোকজন মালামাল লুট করে নিয়ে য়ায়। পরে কিচু মালামাল ফেরত দেয়। (রফিকুল ইসলাম পেট্রোল পাম্প সংলগ্ন হাজী খায়র্বল আমীনের জায়গা ভাড়া নিয়ে সেখানে একটি কফি হাউজ তৈরী করেন এবং মালিক পৰ কপি হাউজ বন্ধ করে তাকে উচ্ছেদ করার চেষ্টা করে ,এ ঘটনা কে কেন্দ্র করে দীর্ঘ দিন ধরে দু” জনের মধ্যেএ নিয়ে দ্বন্ধ চলে আসছে) তিনি আরো জানান আমি থানা পুলিশ সহ সবার কাছে বিচার চেয়েও বিচার পাইনি এবং আমার বির্বেদ্ধে গৌরীপুর থানায় একটি মামলাও দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার পর বিকেলে কফি হাউজের সব মালামাল মালিক পৰের লোকজন লুট করে নিয়ে গেছে বলেও অভিযোগ করেন।
এ ঘটনার পরিপেক্ষিতে জমজম ফিলিং ষ্টেশনের মালিক হাজী খায়রুল আমীন মামলা দায়েরের প্রস’তি নিচ্ছেন বলে জানান।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৬:১০ অপরাহ্ণ | জুলাই ৩০, ২০১৬