|

দেশে হেপাটাইটিস বি’তে আক্রান্ত ৫.৪ শতাংশ লোক

02-

৩০ জুলাই ২০১৬, শনিবার
বাংলাদেশে ৫.৪ শতাংশ লোক হেপাটাইটিস বি এবং ০.৮ শতাংশ লোক হেপাটাইটিস সি ভাইরাসে আক্রান্ত বলে জানিয়েছেন অ্যাসোসিয়েশন ফর দি স্টাডি অব লিভার ডিজিজেজ বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক ও ফোরাম ফর দি স্টাডি অব দি লিভারের চেয়ারম্যান ডা. মামুন আল মাহতাব।
তিনি বলেন, দেশে প্রতি বছর প্রায় ৫ লাখ লোক এ রোগে মৃত্যুবরণ করে। লিভারজনিত এই রোগের চিকিৎসা ব্যায়বহুল। হেপাটাইটিস বি-এর চিকিৎসায় প্রতি বছর যে অর্থ ব্যয় হয় তা দিয়ে প্রতি পাঁচ বছরে একটি পদ্মা সেতু বানানো সম্ভব।
বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত গোলটেবিল বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন। বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস-২০১৬ উপলৰে গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে অ্যাসোসিয়েশন ফর দি স্টাডি অব লিভার ডিজিজেজ বাংলাদেশ, ডিজিজ কন্ট্রোল ইউনিট, স্বাস’্য অধিদপ্তর, ফোরাম ফর দি স্টাডি অব দি লিভার বাংলাদেশ এবং ভাইরাল হেপাটাইটিস ফাউন্ডেশন।
বৈঠকে ডা. মামুন আল মাহতাব জানান, বাংলাদেশে লিভার সিরোসিস ও লিভার ক্যানসারের প্রধান কারণ হচ্ছে হেপাটাইটিস বি এবং সি ভাইরাস। তাই এ রোগ সম্পর্কে দেশব্যাপি প্রচারণা চালাতে হবে।
হেপাটাইটিস বি ভাইরাসের গবেষণায় দেশের লিভার বিশেষজ্ঞদের অবদানের প্রশংসা করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের উপাচার্য অধ্যাপক কামর্বল হাসান খান বলেন, ‘ভাইরাল হেপাটাইটিস নির্মূলের লৰ্য অর্জনে বিএসএমএমইউ অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাবে। এৰেত্রে দেশের লিভার বিশেষজ্ঞদের অবদানের অবদান অপরিসীম।’
অ্যাসোসিয়েশন ফর দি স্টাডি অব লিভার ডিজিজেজ বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক সেলিমুর রহমানের সভাপতিত্বে এ সময় উপসি’ত ছিলেন আয়োজক সংগঠনের সহ-সভাপতি ডা. ফার্বক আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. শেখ মোহাম্মদ নূর-ই-আলম, স্বাস’্য অধিদপ্তরের ডিজিজ কন্ট্রোল ইউনিটের পরিচালক অধ্যাপক একেএম শামসুজ্জামান, ভারতের যশোদা ইনস্টিটিউট অব লিভার ট্রান্সপৱ্যান্টেশন অ্যান্ড হেপাটোবিলিয়ারী ডিজিজেজ এর লিভার ট্রান্সপৱ্যান্টেশন বিভাগের প্রধান ডা. পি. বালাচন্দন মেনন প্রমুখ।এফএনএস স্বাস’্য:

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:২৭ অপরাহ্ণ | জুলাই ৩০, ২০১৬