|

শ্রীবরদীর উপজেলা পরিষদ সড়কে অসংখ্য খানাখন্দ

10731042_1736684446557545_3895808994172940950_n (2)

শ্রীবরদী প্রতিনিধিঃ  সংস্কারের অভাবে শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলা পরিষদ সড়কের অবস্থা অনেকটাই বেহাল। উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর এলজিইডির দায়সারা দায়িত্ব পালনের কারণেই বর্ষা মৌসুমে হেটে চলার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে সড়কটি। সড়ক জুড়ে সৃষ্টি হয়েছে অসংখ্য ছোটবড় খানাখন্দ। উপজেলার গুরুত্বপুর্ণ সড়ক হওয়ার পরও পথচারীদের সীমাহীন দুর্ভোগের মধ্য দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে ভাঙ্গা এ সড়ক দিয়ে। উপজেলা পরিষদের বাসিন্দা কবির হোসেন বলেন, বিগত কিছুদিন আগে ভাঙ্গা সড়ক সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হয়। সংগীত নামের এক ঠিকাদার সড়ক সংস্কারের কাজ শুরু করেন। হঠাৎ তিনি নাকি কাজ রেখেই পালিয়ে গেছেন। জানা যায়, শ্রীবরদী- শেরপুর সড়কের কুড়িকাহনিয়া নামক এলাকায় ব্রীজ নির্মানের কারণে সেই সড়কে বড় ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে দীর্ঘদিন যাবত। ফলে অতিরিক্ত যানবাহন চলাচলের কারণে উপজেলা পরিষদ গেইট থেকে পৌরশহর পর্যন্ত ৬শ মিটার রাস্তায় খানাখন্দকে সৃষ্টি হয়ে চলাচলের অনুযোগী হয়ে পড়েছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ এ রাস্তাটি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সংস্কারের কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেন নি। বর্তমানে এ রাস্তায় যান চলাচল তো দুরের কথা পায়ে হেঁটে পথচারীদের যাতায়ত করতে কষ্ট হয়ে পরছে। মাঝে মধ্যে দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছে যানবাহন ও পথচারীরা। এ পথে যাতায়ত করতে গিয়ে নানা বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে স্কুলগামি শিক্ষার্থী। উপজেলার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন লোকাল বয়েজের মুখপাত্র এ.জেড রুমান বলেন, উপজেলার ব্যস্ততম সড়ক দিয়ে প্রতিদিন কয়েক শতাধিক যানবাহন বড় কষ্টে চলাচল করছে। পাশাপাশি কয়েক হাজার পথচারীরা জীবনের ঝুকিনিয়ে চলাচল করছে। রাস্তাটি দীর্ঘ দিনেও সংস্কার না করায় এখন সামান্য বৃষ্টিতেই সড়কটি মাছ চাষের পুকুরে পরিণত হয়েছে। স্থানীয় এলাকাবাসী ইতিমধ্যেই এ সড়কে কচুঁগাছ লাগিয়ে প্রতিবাদ করেছেন। উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক তারেক মুহম্মদ আব্দুল্লাহ রানা বলেন, বর্ষা মৌসুমের শুরুতেই এলজিইডির পক্ষ থেকে একজন ঠিকাদার রাস্তা সংস্কারের উদ্যোগ নিলেও এলজিইডির কর্মকর্তাদের দায়সারা দায়িত্ব পালনের কারণে কাজ শেষ না করেই ঠিকাদার এলাকা ছেড়েছে। রাস্তা দ্রুত সংস্কারের জন্য স্থানীয় এমপি সাহেব উপজেলা প্রকৌশলীকে বারবার নির্দেশ প্রদান করলেও দীর্ঘদিনেও তা বাস্তবায়ন হয় নাই। এ প্রসঙ্গে এলজিইডির প্রকৌশলী মো. জাহাঙ্গির আলম বলেন, বর্ষার পরে রাস্তাটি সংস্কারের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৩:৪৫ অপরাহ্ণ | জুলাই ২৫, ২০১৬