|

সর্বশেষ

কেন্দুয়ায় আতঙ্কের মধ্যে হুমায়ুন আহমেদের মৃত্যুবার্ষিকী পালন করবে

নেত্রকোনা প্রতিনিধি ঃ নন্দিত কথা সাহিত্যিক নাট্যকার ড. হুমায়ুন আহমেদের ৫ম মৃত্যুবার্ষিকী মঙ্গলবার। আজানা আতঙ্কের মধ্য দিয়ে জেলার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুর গ্রামে হুমায়ুন আহমেদের হাতে গড়া শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠে স্বল্প পরিসরে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস’ার মধ্য দিয়ে মৃত্যুবার্ষিকীর অনুষ্ঠান পালন করা হবে।
অচেনা মানুষের আনাগুনায় এবং ড. হুমায়ুন আহমেদ সম্পর্কে বিদ্যালয় ও আশপাশের লোকজনের কাছ থেকে খোঁজ খবর নেয়ায় বিদ্যাপীঠের শিৰক, শিৰার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসীর মধ্যে বেশ ক’দিন ধরে অজানা আতঙ্ক বিরাজ করছে। অনুষ্ঠান পালনে বিদ্যালয় কর্তৃপৰ থানা পুলিশের কাছে চেয়েছেন যথাযথ নিরাপত্তা। দুই দিনের অনুষ্ঠান কমিয়ে একদিন করা হয়েছে। শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠের প্রধান শিৰক আসাদুজ্জামান মঙ্গলবার সন্ধায় কেন্দুয়া থানায় সাধারণ ডায়রী (জিডি) করেছেন।
বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ড. হুমায়ুন আহমেদের মৃত্যুর পর থেকে প্রতিবছর ঘটা করে উৎসব মূখর পরিবেশে কুতুবপুর গ্রামে মৃত্যুবার্ষিকী ও জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠান পালন করা হত। মৃত্যুবার্ষিকীর অনুষ্ঠান দুই দিনব্যাপী পালন করা হত। অচেনা মানুষের আনাগুনার কারণে এবার ওই অনুষ্ঠান একদিনে পালনা করা হবে। তার মধ্যে আজ মঙ্গলবার কালো ব্যাজ ধারণ, কোরআন তেলায়াত, শিৰক শিৰার্থী ও অভিভাবকদের বিদ্যাপীঠ প্রাঙ্গনে শোক র‌্যালী, শেষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল। সকালে পুলিশ আসার পর অনুষ্ঠান শুর্ব করা হবে। অনুষ্ঠন থেকে বাদ দেয়া হয়েছে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা, রাতের বেলায় হুমায়ুন আহমেদ নির্মিত চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ও বিদ্যাপীঠে লাইব্রেরীতে হুমায়ুর আহমেদের লেখা বই পড়া।
জানা গেছে, গত ১০ জুলাই সন্ধায় অপরিচিত দুই ব্যক্তি স্কুলে আসে। তারা স্কুল সংলগ্ন দোকানে গিয়ে হুমায়ুন আহমেদ সম্পর্কে জানতে চায়। তার ধর্মীয় অনুভুতি কেমন ছিল। হুমায়ুন আহমেদ নামাজ পড়তেন কি-না ? নামাজ পড়ে থাকলে আপনি দেখছেন কি-না ? গ্রামের মসজিদে কোন অনুদান দিয়েছেন কি-না ? এ ধরনের না প্রশ্ন। পরে তারা প্রধান শিৰকের খোঁজ করেন। তাদের চেহারা ও পোষাক দেখে এলাকাবাসী আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। পরে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে সবার মাঝে আতঙ্ক দেখা দেয়।
প্রধান শিৰক আসাদুজ্জামান বলেন, ছাত্র ছাত্রীদের পরীৰা চলার কারণে শিৰার্থীদের বিষয়টি জানানো হয়নি। তবে এ নিয়ে বিদ্যালয়ের শিৰক ও অভিভাবকদের মধ্যে বেশ আতঙ্ক বিরাজ করছে। অনুষ্ঠানের পরিসরও কমিয়ে আনা হয়েছে। বাড়তি নিরাপত্তা দেয়ার জন্য কেন্দুয়া থানায় আবেদন এবং জিডি করা হয়েছে। পুলিশ আসার পর অনুষ্ঠান শুর্ব করা হবে।
কেন্দুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অভিরঞ্জন দেব জিডি করার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এলাকাবাসীকে আতঙ্কিত না হওয়ার জন্য পরামর্শ দেন। শান্তিপূর্নভাবে অনুষ্ঠান পালনের লৰ্যে সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস’া গ্রহন করা হয়েছে। বিদ্যালয় ও আশপাশের এলাকা পুলিশের নজরদারীতে আছে। যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর পরিসি’তি মোকাবেলায় জন্য প্রস’তি রয়েছে।
উলেৱখ্য, শহীদ বাবার স্মৃতি হৃদয়ে ধারণ করে নন্দিত কথা সাহিত্যিক ড. হুমায়ুন আহমেদের গ্রামের বাড়ি জেলার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুরে ১৯৯৬ সালে নিজ হাতে গড়া “শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠ”। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই বিদ্যালয়টি ব্যাপক সুনাম অর্জন করে চলছে। প্রতিবছর এসএসসি ও জেএসসি কৃতিত্বের স্বাৰর রেখে উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠত্বের স্বীকৃতির মুকুট লাভ করেছেন।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:০৬ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৮, ২০১৬