|

মুক্তাগাছায় শিক্ষক লাঞ্চিত হওয়ার ঘটনায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া- আহত ১০

 

মুক্তাগাছা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি: মুক্তাগাছা চেচুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিৰক লাঞ্চিত হওয়ার ঘটনায় গত শনিবার থেকে শিৰার্থীরা ক্লাস বর্জন করছে। গতকাল রবিবার বেলা ১১টায় শিৰার্থীরা ক্লাস বর্জন করে আন্দোলন করতে গেলে এতে ছাত্র অভিভাবক ও শিৰকরা বাধা দেন। আন্দোলনে বাধা দেয়ায় প্রতিপৰ স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও শাহ্‌জাহান বহিরাগত কিছু সংখ্যক লোক নিয়ে শিৰকসহ অভিভাবকদের উপর হামলা চালায় এতে উভয়ের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুর্ব হয়। উভয় পৰের মধ্যে অন্তত ১০ জন আহত হয়। গুর্বতর আহত হার্বনুর রশীদকে মুক্তাগাছা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে উক্ত ঘটনার জের ধরে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে তার পুত্র, ভাতিজা ও স্ত্রী এবং শাহজাহানের বাড়ী থেকে মেয়েছেলে এনে শিৰিকা নাজমাসহ অন্যান্য শিৰকদের উপর হামলা চালানো হয়। সিরাজের নির্দেশে সিরাজের পুত্র, ভাতিজা ও তার স্ত্রী স্কুলের সহকারি শিৰিকা নাজমা খাতুনকে চুলের মুঠি ধরে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করে এবং শিৰক মিজানুর রহমান কে হত্যার চেষ্টা চালায় বলে মিজানুর রহমান জানান। উক্ত ঘটনায় নাজমা বেগম বাদী হয়ে মুক্তাগাছা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে বলে নাজমা বেগম এ প্রতিবেদককে জানান। এদিকে শিৰক লাঞ্চিত হওয়ার ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান হোসেন আলীর বির্বদ্ধে স’ানীয় প্রেসক্লাবে উপজেলার সবকটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিৰকরা সাংবাদিক সম্মেলন করে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে শিৰক নাজেহালের বিচার দাবী করেন। অন্যথায় পরীৰা ও ক্লাস বর্জনসহ বৃহৎ আন্দোলনের ডাক দেয়ার হুমকি দেন। সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ শিৰক সমিতি (কামার্বজ্জামান) মুক্তাগাছা শাখার সভাপতি মোঃ এনামুল হক। উলেৱখ্য, গত ১৫ জুলাই দুলৱা ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান হোসেন আলী চেচুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিৰক পীযুষ চন্দ্র হংস কে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন তারিখ পেছানোর জন্য বলেন এবং কারণ হিসেবে তফসিল ঘোষণায় মনোনয়ন পত্রের ৩ হাজার টাকা জমা দেয়ার কোন সুনির্দিষ্ট দিক নির্দেশনা ছিলো না এবং শিৰক প্রতিনিধি নিয়োগে ভোটার তালিকা তৈরি না থাকায় তাকে ৮/৯ জন শিৰকের সামনে তাকে ডেকে এনে নির্বাচনের তারিখ কয়েকদিন পেছানের আবেদন করার জন্য বলা হয় যাতে এ ফাঁকে অসমাপ্ত কাজ সম্পন্ন করা যায়। চেয়ারম্যান হোসেন আলী জানান, উক্ত ঘটনাকে পুঁজি করে একটি মহল প্রধান শিৰককে নিয়ে প্রতিষ্ঠানের ভাবমূর্তি নস্টসহ ৰতি করার চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:৪২ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৭, ২০১৬