|

শেরপুরের পল্লীতে পারিবারিক কোন্দল প্রতিপক্ষের হামলায় আহত এক কৃষকের মৃত্যু: এক নারী গ্রেপ্তার

শেরপুর সংবাদদাতা: ১৩ জুলাই ২০১৬, বুধবার,
শেরপুরে পারিবারিক কোন্দল ও টাকাপয়সা লেনদেনের জেরে প্রতিপৰের হামলায় আহত কৃষক মো. আশরাফ আলী (৩৮) ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (মচিমহা) চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১২ জুলাই মঙ্গলবার সকালে মারা গেছেন। আশরাফ শেরপুর সদর উপজেলার চরপৰীমারী ইউনিয়নের জঙ্গলদী মাইরাদী গ্রামের মো. আব্দুর রেজ্জাকের ছেলে। গত ১০ জুলাই রোববার বিকেলে প্রতিপৰের হামলায় তিনি গুর্বতর আহত হন।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন যাবত পারিবারিক কোন্দল ও টাকা পয়সার লেনদেন নিয়ে সদর উপজেলার জঙ্গলদী মাইরাদী গ্রামের সৈয়দ আলীর ছেলে মো. মামুন মিয়ার সঙ্গে কৃষক আশরাফ আলীর বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে গত ১০ জুলাই রোববার বিকেল পাঁচটার দিকে মামুন মিয়ার নেতৃত্বে ৩০-৩৫ জন লোক দেশীয় ধারালো অস্ত্র নিয়ে আশরাফ আলীর বাড়িতে হামলা চালান। হামলায় আশরাফ ও তাঁর প্রতিবেশী মোশাররফ হোসেন গুর্বতর আহত হন। আহতদের জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আশরাফ আলীকে মচিমহায় ভর্তি করা হলে মঙ্গলবার সকাল আটটায় তিনি সেখানে মারা যান। ঘটনার পরপরই হামলাকারীরা পালিয়ে যান।
শেরপুর সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জীবন চন্দ্র বর্মণ বলেন, এ ঘটনায় নিহত আশরাফের স্ত্রী কাঞ্চন খাতুন বাদী হয়ে মামুন মিয়াকে প্রধান আসামি করে ২৪ জনকে সুনির্দিষ্টভাবে এবং অজ্ঞাতনামা আরও ১০-১২ জনের বির্বদ্ধে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ মামলার এজাহারভুক্ত আসামি মোছা. পারভীনকে গ্রেপ্তার করেছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্যদেরও গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে। নিহতের লাশ মচিমহায় ময়নাতদন্তশেষে পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হবে বলে তিনি জানান।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:০৯ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৩, ২০১৬