|

ময়মনসিংহ-৩ গৌরীপুর আসনে উপনির্বাচন শুধু শোডাউন-প্রচারণায় আ’লীগ ॥ ভোটারদের মাঝে নির্বাচনী আমেজ নেই

index

সাজ্জাতুল ইসলাম সাজ্জাত, গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) ১৩ জুলাই ২০১৬, বুধবার
ময়মনসিংহ-৩, গৌরীপুর সংসদীয় আসনের উপনির্বাচনে আগামী ১৮ জুলাই ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। এ লৰ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত (নৌকা) মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নাজিম উদ্দিন আহমেদ সহ পাচঁজন প্রার্থী নির্বাচনের প্রতিদ্বন্ধীতা করছেন। অন্যরা হলেন জাপা মনোনীত (লাঙ্গল) জাতীয় পার্টির উপজেলা সভাপতি সামছুজ্জামান জামাল, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) ময়মনসিংহ জেলা কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মতিন মাস্টার (কুড়েঁঘর), ময়মনসিংহ জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক উপজেলা বিএনপি (একাংশের) যুগ্ম আহ্বায়ক হাফেজ মোঃ আজিজুল হক (মটরগাড়ী) , ইসলামী ঐক্য জোটের নেতা মাওলানা আবু তাহের খান (মিনার)। তাদের মধ্যে শুধু আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর (নৌকা) পৰে প্রতিনিয়ত প্রচার প্রচারণা, পথসভা-গণসংযোগ ও নির্বাচনী শোডাউন চলছে। অন্যদের এভাবে প্রচারণা করতে দেখা যায়নি। গ্রামাঞ্চলের ভোটারদের ৰোভ একটি জাতীয় সংসদ নির্বাচন তারা এখনও আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছাড়া অন্য প্রার্থীদের চেহারা দেখেননি। আবার অনেকের নামও শুনেননি। কোথাও তাদের নির্বাচনী পোস্টারও দেখা যায়নি। ফলে ভোটারদের মাঝে কোন নির্বাচনী আমেজ নেই।
নির্বাচনী এলাকা ঘুরে ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা যায়, একমাত্র আওয়ামী লীগের মনোনীত (নৌকা) প্রার্থী ছাড়া অন্যরা নিজ এলাকার বাহিরে কমীসমর্থকদের নিয়ে দল বেধেঁ প্রচারণা ও গণসংযোগ করতে পারছেন না। দু’একজন প্রার্থী নির্বাচনের শুর্বর দিকে নিজ এলাকায় শোডাউন ও গণসংযোগ করতে গিয়ে ৰমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের বাধাঁর সম্মুখিন হয়েছেন। দলছুট বিএনপি নেতা হাফেজ মোঃ আজিজুল হক (মটরগাড়ী) প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। লোকমুখে শুনা যায় তিনি বিএনপি সরকারের আমলে দলীয় ৰমতা ব্যবহার করে তদবির বাণিজ্য, ঠিকাদারী ও টিআর কাবিখা সহ বিভিন্ন ব্যবসায় যুক্ত থেকে টাকার পাহাড় গড়েছেন। পরে বিএনপির সরকারের পট পরিবর্তনের সাথে সাথে আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পর তিনি আওয়ামী লীগের স’ানীয় এমপির কাধেঁ ভর করে অনুর্বপ কর্মকান্ডে যুক্ত হয়ে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডের টাকা লুটপাট করেছেন। এ আসনে পরপর তিন বার নির্বাচিত জাতীয় সংসদ সদস্য, সাবেক স্বাস’্য প্রতিমন্ত্রী ও গৌরীপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ডাঃ ক্যাপ্টেন (অবঃ) মজিবুর রহমান ফকিরের মৃত্যুর পর তার স্বাদজাগে এমপি হওয়ার। ফলে এমপি মারা যাওয়ার পরপরই উপজেলার সর্বত্র প্যানা-পোস্টারে তিনি নিজেকে বিশিষ্ট শিল্পপতি হিসেবে দাবী করে ভোটরদের সমর্থন চান। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর তিনি নিজেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ঘোষনা করেন। পরে পবিত্র রমজান মাসে বিএনপির বিভিন্ন কর্মকান্ডে তিনি যোগদান করতে গিয়ে বাধাঁর সম্মুখিন হয়ে নিজেকে গুটিয়ে নেন। ফলে বিএনপির নেতাকর্মীদের ভয়ে নিজ এলাকা ছাড়া অবাধে তিনি কোথাও বিচরণ করতে পারছেন না। তিনি নির্বাচনী কর্মকান্ড পরিচালনা করছেন নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সোয়াদ ফিলিং স্টেশনে বসে। এখানে বসে তার পরিচিত বিভিন্ন এলাকার লোকদের ডেকে এনে উপকৌটন দিচ্ছেন। তারঁ ফেইসবুক স্ট্যাটাসের নিজস্ব ওয়ালে স’ানীয় বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের কতিপয় নেতাকর্মীদের ছবি দিয়ে তিনি লিখেছেন তাদের নিয়ে নির্বাচনী পরিকল্পনা করছেন। তাদের মধ্যে দু’একজন বলেন, হাফেজ আজিজুল তার তেলের পাম্পে ডেকে নিয়ে বৱ্যাক মেইল করেছেন। এ বিষয়ে জানতে তাকে ০১৭১১৫৮৯৯৯৮ নাম্বারে ফোন করা হলে তিনি মোবাইল রিসিফ করেননি। উপজেলা বিএনপির একাংশের আহবায়ক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আহম্মদ তায়েবুর রহমান হিরণ বলেন, এ নির্বাচনে যারা হাফেজ আজিজুলের পৰে প্রকাশ্যে ও গোপনে সমর্থন দিয়েছেন তাদের মাঝে দলীয় চেতনা নাই। অপর অংশের আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার মকবুল হোসেন বকুল বলেন, তার বির্বদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস’া নেওয়া হচ্ছে।
উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি সামছুজ্জামান জামাল উপজেলা ও ইউপি নির্বাচনে বেশ কয়েকবার ফেল করে এবার তিনি জাপা মনোনীত (লাঙ্গল) প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে আছেন। তৎকালিন সময়ে এ উপজেলায় জাতীয় পার্টির বেশ দাফট ছিল। এখন নেতাকর্মীরা অনেকেই অন্য দলে চলে গেছেন। যারা আছেন তারা গোপনে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সাথে আতাঁত করছেন। তাই নির্বাচনী মাঠে তিনি কর্মীর বহর ছাড়াই দৌড়ঝাঁপ পারছেন। এছাড়াও সাংগঠনিক তৎপরতা না থাকলেও নির্বত্তাপ নির্বাচনী মাঠে দৌড়াচ্ছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) সমর্থিত প্রার্থী (কুড়েঁঘর) ময়মনসিংহ জেলা কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মতিন মাস্টার। তবে ইসলামী ঐক্য জোটের প্রার্থী (মিনার) মাওলানা আবু তাহের খানকে এখনও নির্বাচনী মাঠে ভোটারদের দেখা মেলেনি। সূত্র মতে, এ আসনের উপনির্বাচন আওয়ামী লীগের অনুকুলে। ফলে উজ্জিবিত জেলা-উপজেলার নেতাকর্মীরা কোমড় বেধেঁ মাঠে নেমেছেন ভোট কেন্দ্রে ভোটারের উপসি’তি বাড়ানোর জন্য। এ আসনের ১০টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা নিয়ে নির্বাচনী এলাকা ময়মনসিংহ-৩ গৌরীপুর। এ আসনে মোট ভোটার ২ লক্ষ ২৬ হাজার ২৩৫ জন। এর মধ্যে পুর্বষ ভোটার ১ লক্ষ ১৩ হাজার ৮৯২ জন ও মহিলা ভোটার ১ লক্ষ ১২ হাজার ৩৪৩ জন।
উলেৱখ্য, এ আসনের সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ও গৌরীপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ ক্যাপ্টেন (অবঃ) মজিবুর রহমান ফকির এমপি গত ২মে হৃদরোগ জনিত কারণে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। ##

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:০১ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৩, ২০১৬