|

ছক্কায় চোখ নষ্ট,অনুশোচনায় ডেভিড মিলার

অনলাইন ডেস্ক, ১৮ মে ২০১৫, সোমবার:

স্তব্ধ ডেভিড মিলার। ছক্কা মেরেই যেন অনুশোচনা করতে হচ্ছে তাকে। বিব্রতও বটে। তার ছক্কায় চোখ হারিয়েছেন কলকাতার একজন পুলিশ কনস্টেবল। এটা শুনে মেনে নিতে পারছেন না দক্ষিণ আফ্রিকার এ ব্যাটসম্যান। নিজেই ঘটনার জন্য অনুশোচনা করছেন। তবে ডেভিড মিলারের এতে কোনো দোষ নেই। নিজের কাজটাই তিনি করেছেন। আর ভালভাবে করতে গিয়ে এই দুর্ঘটনা ঘটে গেছে। ঘটনা ৯ মে ভারতীয় প্রিমিয়ার লীগে (আইপিএল)। কলকাতার ইনেড গার্ডেনসে সফর করে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। পাঞ্জাবের ইনিংসের শেষ ওভারে বল করছিলেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের ক্যারিবীয় পেসার অ্যান্ড্রু রাসেল। ওভারের প্রথম বলটি লং-অফ দিয়ে গ্যালারিতে আছড়ে ফেলেন ‘কিলার মিলার’ নামে পরিচিত ডেভিড মিলার। বলটি সরাসরি গিয়ে আঘাত করে স্টেডিয়ামে দায়িত্বরত পুলিশ কনস্টেলব অলোক আইচের ডান চোখে। মারাত্মক আহত অবস্থায় তাকে স্থানীয় হাতপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রথমে মনে হচ্ছিল চোখটা বাঁচানো যাবে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ডাক্তার তার ডান চোখটি রাখতে পারেন নি। মিলারের ছক্কার বলের আঘাতে চোখ হারিয়ে কলকাতা পুলিশের এ সদস্যের পরিবার পড়েছে অনিশ্চিয়তায়। আর এ খবর শুনে ডেভিড মিলার বলেন, খুবই ভয়ঙ্কর ঘটনা। এটা সত্যি না হলেই ভাল। মিস্টার আএিচর অপূরণীয় ক্ষতির জন্য আমি দুঃখিত। আশা করছি খুব শিগগিরই তিনি সেরে উঠবেন।’ এই ঘটনায় অলোকের পরিবার ভবিষ্যত অন্ধকার দেখছেন। তার স্ত্রী রেণুকা বলেন, ‘হাতে একটা পয়সাও নেই, জানেন? আমাদের ভষ্যিত কী হবে জানি না। চাকরিটা থাকবে কি-না সেটাও বুঝতে পারছি না। আমার ছেলে রানার চাকরি হলে কিছুটা বাঁচবো। না হলে কী হবে জানি না।’ তার ছেলে রানাও শঙ্কিত। বলেন, ‘জানি না- কী হবে। তার ডান চোখটা নেই। তাকে চাকরিতে না রাখলে কী হবে বুঝতে পারছি না।’ আর ঘটনার স্বীকার অলোক আইচ বলেন, ‘আমার জীবনে কোনো কাজ নেই। মানিসিকভাবে আমি বিধ্বস্ত’

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৪:৪৩ অপরাহ্ণ | মে ১৮, ২০১৫