|

নেত্রকোনায় ইভটিজিং থেকে মেয়েকে বাঁচাতে গিয়ে খুন হওয়া বাবার মামলা ডিবিতে

নেত্রকোনা প্রতিনিধি : ১৭ এপ্রিল, রোববার,

সদর উপজেলার বর্ণি গ্রামে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় বখাটেদের হাতে খুন হন কৃষ্ণ গোবিন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রীর বাবা মো. শামছুদ্দিন। মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে আদালতে না রাজি দেয়ায় মামলাটি ডিবিতে দেয় আদালত।
জানা গেছে, ২০১৩ সালের ১৬ নভেম্বর সদর উপজেলার ঠাকুরাকোনা ইউনিয়নের বর্ণি গ্রামের মো. শামছুদ্দিনের মেয়ে কৃষ্ণ গোবিন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রীকে গ্রামের কয়েক বখাটে উত্যক্ত করছিল। এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় দুর্বৃত্তরা শামছুদ্দিনকে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মো. জামাল মিয়া বাদী হয়ে পরদিন ৮জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ৫-৭জনের নামে নেত্রকোনা মডেল থানায় মামলা করেন। বিলম্বে লাশের ময়না তদন্ত, প্রত্যক্ষ স্বাক্ষীদের স্বাক্ষ্য না নেয়া এবং ঘটনাস’লের স্বাক্ষীদের জিজ্ঞাসাবাদ না করেই দ্রুত সময়ের মধ্যে আসামী পক্ষের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে চার্জসীট প্রদান করায় বাদী আদালতে না রাজি প্রদান করেন। এ দিকে আসামী পক্ষের লোকজন বাদী পক্ষের তিনটি গরু বিষ খাইয়ে মেরে ফেলে। মামলার ৮ নম্বর আসামী গত বছরের ১৮ নভেম্বর বাদী বাদীর ওপর আক্রমনের চেষ্টা চালায় এবং হুমকি প্রদান করে। এ ঘটনায় পরদিন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালত খ অঞ্চল বরাবর বাদী দরখাস- করেন। নিহতের জীবদ্দশায় বন্ধকী জমির টাকা না দিয়েই ধান কেটে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করা হয়। বাদীর অভিযোগ আসামী নয়ন মিয়া, খোকন কখনো সরকার দরের আবার কখনো ডিবির নাম ভাঙ্গিয়ে এলাকায় ছিনতাইসহ নানা অপরাধ করে থাকে। ওরা এলাকায় দাফটের সাথে চলাফেরা করে। এলাকার কেউ এদের বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস পায়না।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:৪৮ অপরাহ্ণ | মে ১৭, ২০১৫