|

বেতন বৈষম্যের অভিযোগে রোববার থেকে আন্দোলনে নামছে সরকারি কর্মচারীরা

 অনলাইন ডেস্ক,, ১৬ মে ২০১৫, শনিবার,

নতুন বেতন কাঠামোতে বৈষম্যের অভিযোগ এনে তা দ্রুত নিরসনসহ পাঁচ দফা দাবিতে আগামীকাল রোববার থেকে আন্দোলনে নামছে সরকারি কর্মচারীরা। ১ জুনের মধ্যে দাবি আদায় না হলে কঠোর কর্মসূচি দেয়ার হুমকি দিয়েছেন তারা। শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সরকারি কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের মহাসচিব নোমানুজ্জামান আল আজাদ নতুন বেতন কাঠামো পুননির্ধারণের দাবিতে এ আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

কর্মসূচিতে রয়েছে রোববার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ ও প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ, সারাদেশে জেলায় বিক্ষোভ সমাবেশ ও জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি পেশ। এতেও দাবি আদায় না হলে সংগঠনটি পহেলা জুন থেকে লাগাতার কর্মসূচি পালন করবে ।নোমানুজ্জামান আল আজাদ বলেন, ‘নতুন বেতন কাঠামোতে আমাদের প্রত্যাশা পূরণ হয়নি। কমিটিতে আমাদের প্রতিনিধি রাখা হয়নি। বর্তমান বাজারে সর্বনিম্ন বেতন ৮ হাজার ২৫০ টাকা দেয়ার সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক।’সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, সরকারের প্রস্তাবিত বেতন কাঠামো বর্তমান বাজার দরের তুলনায় চরম অসঙ্গতিপূর্ণ। যেখানে সর্বোচ্চ স্তরের বেতন স্কেল চূড়ান্ত করা হয়েছে ৯০ হাজার টাকা সেখানে সর্বনিম্ন পর্যায়ে মাত্র ৮ হাজার ২৫০ টাকা। যে সময়ে ১২ লাখ কর্মচারী একটি মানসম্মত বেতন কাঠামোর আশায় অপেক্ষমান সে সময়ে ২০ শতাংশ মহার্ঘ ভাতা একীভূত করে সর্বনিম্ন ৮ হাজার ২৫০ টাকা বেতন নির্ধারনের প্রস্তাব করায় সারাদেশের গণকর্মচারী অঙ্গনে চরম হতাশা, তীব্র অসন্তোষ ও ক্ষোভের জন্ম দিয়েছে।৬ সদস্যের একটি পরিবারের জন্য সর্বনিম্ন বেতম ১৮ হাজার টাকা নির্ধারণেও দাবি জানান বক্তরা। সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি মো. মোয়াজ্জেম হোসেন, কার্যকরি সভাপতি এম এ হান্নান, কেন্দ্রীয় নেতা বদরুল আলম সবুজ, সেলিম ভুইয়া প্রমুখ।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:৫১ অপরাহ্ণ | মে ১৬, ২০১৫