|

অসময়ে ঝরে পড়া তারা…

অনলাইন বিনোদন:ডেস্ক,, ১৫ মে ২০১৫, শুক্রবার,অসময়ে চলে গেলেন তরম্নণ অভিনেতা সায়েম সাদাত। অসময়ে গেছেন আরো। এইসব অকারণ প্রস্থান মেনে নেয়ার মতো নয়। ভক্তদের কাঁদিয়ে খুব অসময়ে চলে যাওয়া ক’জন শিল্পীর কথা…বাংলা চলচ্চিত্রের অপূরণীয় ক্ষতি…
বাংলাদেশকে আত্মর্জাতিক অঙ্গনে সিনেমা দিয়ে যিনি পরিচয় করিয়ে দেন, তিনি আত্মর্জাতিক মানের নির্মাতা তারেক মাসুদ। পৃথিবীকে প্রথমবারের মতো জানিয়ে দিয়েছিলেন, বাংলাদেশে শুধু অন্যের অনুকরণ করে সিনেমা তৈরি হয় না; কাট পিস আর কপি-পেস্টেরও না, এই দেশে ‘মাটির ময়না’ কিংবা অত্মর্যাত্রা’র মতো দার্শনিক চেতনা মিশ্রিত অসাধারণ সিনেমাও নির্মাণ হয়, ‘রানওয়ে’র মতো সাহসী কাজ হয় এই দেশে। অথচ হঠাৎ একদিন অকালে হারিয়ে যান সিনেমার এই ফেরিওয়ালা।

২০১১ সালের ১৩ আগস্ট ঢাকার অদূরে মানিকগঞ্জে ‘কাগজের ফুল’ ছবিটির লোকেশন দেখতে গিয়ে ভয়াবহ গাড়ি দুর্ঘটনার শিকার হোন তিনি। সেই দুর্ঘটনা শুধু অকাল প্রয়াত তারেক মাসুদের পরিবারের ক্ষতি নয়, ক্ষতি হয়েছে পুরো বাংলাদেশের। তার ওমন নির্মম মৃত্যুতে বাংলাদেশ হারিয়েছে আনত্মর্জাতিক মানের একজন নির্মাতাকে।
অভিনয়ে শুরম্নর আগেই শেষ…
মৃত্যু একটি অনিবার্য সত্য। আজ হোক কাল হোক মৃত্যুর স্বাদ প্রত্যেককেই ভোগ করতে হবে। তারপরও কিছু কিছু মৃত্যু আচমকা, ভীষম খেতে হয়। দেশের জনপ্রিয় টিভি অভিনেতা, মডেল ও অনুষ্ঠান ব্যবস্থাপক সায়েম সাদাতের মৃত্যু তেমনিই একটি। মাত্র ২৭ বছর বয়সে চলতি মাসের ১০ তারিখ দিবাগত রাত দু’টার দিকে তিনি মারা যান।
এমন মেধাবী ও উঠতি অভিনেতার মৃত্যুতে রাজ্যের শোক অভিনয় জগতসহ তার পরিবার পরিজন, আর স্বজনদের চোখে । কেউ যেন বিশ্বাসই করে উঠতে পারছেন না, চঞ্চল সায়েম আর পৃথিবীতে নেই।
দীর্ঘ বারো বছর প্রেম করার পর বান্ধবীকে বিয়ে করেছিলেন মৃত্যুর মাত্র ৭দিন আগে। সায়েমেরে পরিবার, পরিজনের কথা না-ই বা বললাম; তার এমন মৃত্যুতে মাত্র নতুন জীবনের পথে পা বাড়ানো সেই বান্ধবীটিই বা কীভাবে মেনে নিবেন, বা মেনে নিতে পারছেন! এই ক্ষত হয়তো সায়েমের কাছের মানুষেরা চার দিন পরই ভুলে বসবে; কিন’ সদ্য বিবাহিত স্ত্রী, তার কি হবে? সে কি ভুলতে পারবে এই অপূরণীয় ক্ষতিটা?
সায়েম সাদাত এয়ারটেল প্রযোজিত ও শাফায়েত মনসুর রানা পরিচালিত ‘ভিটামিন টি’ টেলিছবিতে অভিনয় করে বেশ আলোচিত হন। এ ছাড়া ‘ভালোবাসা ১০১’সহ বেশ কয়েকটি নাটকে অভিনয় করেন তিনি ৷ গ্রামীণফোনের দুটি জনপ্রিয় টিভি বিজ্ঞাপনচিত্রেও (টার্নব্যাক) অভিনয় করেন তিনি৷ প্রচারের অপেক্ষায় থাকা রেদওয়ান রনির ধারাবাহিক নাটক ‘ঝালমুড়ি’তে অভিনয় করেছেন তিনি৷ এ ছাড়া সমপ্রতি তিনি রেদওয়ান রনি পরিচালিত ‘আইসক্রিম’ ছবির শ্যুটিং শেষ করেন৷

রাহার মৃত্যু হত্যা না আত্মহত্যা
২০০৭ সালে ‘লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার’-এর চূড়ান্ত দশ জনের একজন নির্বাচিত হয়েছিলেন সুমাইয়া আসগর রাহা। তারপর থেকে অসংখ্য নাটক ও টেলিছবিতে অভিনয় করেছিলেন তিনি। কিন্তু হঠাৎ ২০১৩ সালের ২২ মার্চ শুক্রবার তার মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়। তবে তার মৃত্যুর সঠিক কোনো কারণ এখন পর্যন্ত জানা যায়নি।
জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও মডেল রাহা’র মৃত্যু নিয়ে সেই সময় মিডিয়াতে প্রচুর খবর প্রচার হলেও তা এড়িয়ে যায় তার পরিবার। এলাকার মানুষ রাহা’র স্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছিলেন। অনেকে এটিকে আত্মহত্যা বলেও উলেস্নখ করেন। তবে রাহার মৃত্যু যে অস্বাভাবিক ছিলো তার প্রমানস্বরূপ অনেকে প্রশ্ন রেখেছিলেন যে, যদি স্বাভাবিক মৃত্যুই হয় তা হলে তার পরিবার তাড়াহুড়ো করে মিডিয়াকে না জানিয়ে কেনো দাফন করে ফেললো। এমন যুক্তি কেউ খন্ডাতে না পারলেও রাহার অকাল প্রয়ান কাঁদিয়েছিলো তার ভক্তদের।তার উলেস্নখযোগ্য ধারাবাহিক নাটকের মধ্যে রয়েছে হুমায়ূন আহমেদ পরিচালিত ‘জলতরঙ্গ’, সালাউদ্দিন লাভলুর ‘স্বপ্নবাজার’, রেদওয়ান রনির ‘উচ্চতর শারীরিক বিজ্ঞান’ ও ‘লাকি থারটিন’, রিজিয়া মাসুদের ‘দিনবদলের পালা’, এবং মোসত্মফা সরয়ার ফারম্নকীর ‘এমন দেশটি কোথাও খুঁজে পাবে নাকো তুমি’র মতো অসংখ্য জনপ্রিয় নাটক ও টেলিছবি। এ ছাড়া বেশকিছু বিজ্ঞাপনের মডেলও হয়েছিলেন তিনি।
গান গাওয়া হলো না তারৃ.. ক্লোজ আপ ওয়ান তারকা আবিদ শাহরিয়ার। সুরেলা কণ্ঠে গাইতেন রবীন্দ্র সংগীত। রবীন্দ্র সংগীতে বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় শিল্পীদের একজন মনে করা হতো তাকে। কিন’ প্রতিভার পূর্ণ বিকাশ ঘটার আগেই সমুদ্র কেড়ে নিলো এই মেধাবী এই শিল্পীর প্রান। বন্ধুদের সাথে আনন্দ করতে গিয়ে সলিল সমাধি হয় তার…

এফএনএস বিনোদন:

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:৪৮ অপরাহ্ণ | মে ১৫, ২০১৫