|

দীর্ঘ একযুগ পর জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন সাধারণ সম্পাদক পদে একাধিক প্রার্থী

 

জামালপুর প্রতিনিধি
দীর্ঘ এক যুগ পর আগামী ২০ মে অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জামালপুর জেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে শহরজুড়ে আওয়ামী পরিবারে একদিকে উৎসব অন্যদিকে একাধিক সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী নিয়ে চলছে নানা শঙ্কা। সভাপতি পদে এখন পর্যন্ত একজন প্রার্থীর বিষয়ে সিদ্ধান- নেয়া হলেও সাধারণ সম্পাদক পদে দুইজন প্রার্থী নিয়ে আলোচনা এখন তুঙ্গে।
জানা গেছে, ২০০৩ সালের ২৩ অক্টোবর জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওই সম্মেলনে সভাপতি হন অধ্যাপক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ এবং সাধারণ সম্পাদক হন ফারুক আহমেদ চৌধুরী। এর পর আর সম্মেলন করতে পারেনি দলটি। দীর্ঘ একযুগ পর সম্মেলন হচ্ছে বৃহৎ এই রাজনৈতিক দলটির। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে জামালপুর আওয়ামী পরিবারে এখন একদিকে উৎসব অন্যদিকে শঙ্কা বিরাজ করছে। প্রতিটি উপজেলা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ডে এই সম্মেলন নিয়ে আলোচনা এখন তুঙ্গে। অনুষ্ঠিতব্য এই সম্মেলনের মাধ্যমে আগামী দিনে জামালপুরের আওয়ামী রাজনীতির শীর্ষ পদে কারা দায়িত্ব পাচ্ছেন এই প্রশ্ন এখন সর্বমহলে।
জানা গেছে, জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র এখন পর্যন- সভাপতি পদে একক প্রার্থী বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ বাকী বিল্লাহ’র নাম শুনা যাচ্ছে। সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমেদ চৌধুরী ও বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক এবং এফবিসিসিআই এর পরিচালক রেজাউল করিম রেজনু (সিআইপি)। ইতোমধ্যে দুই সাধারণ সম্পাদক প্রার্থীর পক্ষেই শহর জুড়ে টানানো হয়েছে ব্যানার-ফেস্টুন। সাধারণ সম্পাদক পদের দুই প্রার্থীর কেউই কারোর চেয়ে কম নয় আওয়ামী রাজনীতিতে। জেলা আওয়ামী লীগ ইতোপূর্বে সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দিয়েছে কোন পদে একাধিক প্রার্থী থাকলে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ওই পদে নির্বাচনের মাধ্যমে নেতা নির্বাচিত করা হবে। এর জন্য ব্যালট পেপার ও সীল তৈরিসহ নির্বাচনের সকল প্রস’তি সম্পন্ন করা হয়েছে বলেও আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে।
জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের ২০ মের এই সম্মেলনন উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কৃষি মন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী। প্রধান অতিথি থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। জেলা আওয়ামী লীগের এই সম্মেলনকে সফল ও সার্থক করার লক্ষ্যে ইতিমধ্যে ১০টি উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিগুলো দফায় দফায় সভা করে সম্মেলনের আনুসাঙ্গিক কাজগুলো দ্রুত এগিয়ে নিচ্ছে।
শেষ পর্যন- আওয়ামী লীগের সম্মেলনে যোগ্য, ত্যাগী ও কর্মীবান্ধব নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি হবে এমন প্রত্যাশা দলটির তৃণমূলের নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের।#

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:২০ অপরাহ্ণ | মে ১৫, ২০১৫