|

ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে বোন ম্যারো প্রতিস্থাপন কেন্দ্র উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

অন লাইন ডেস্ক, ৫ মে, ২০১৫: ঢাকা সেনানিবাসের সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) অন্যান্য স্বাস্থ্য সুবিধাসহ একটি বোন ম্যারো প্রতিস্থাপন (বিএমটি) কেন্দ্র যাত্রা শুরু করেছে। দেশে এটি এ ধরনের দ্বিতীয় কেন্দ্র। এরফলে বাংলাদেশে চিকিৎসা বিজ্ঞানে এক নতুন দিগন্তের সূচনা হলো।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বিকেলে ফলক উন্মোচনের মাধ্যমে সিএমএইচ-এ বিএমটি সেন্টার ও একটি পোস্ট এনাসথেটিক কেয়ার ইউনিট, একটি ক্রিটিক্যাল কেয়ার সেন্টার এবং একটি ক্যাজুয়ালিটি ও ইমারজেন্সী ইউনিট উদ্বোধন করেন।
প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাশাপাশি আর্মি মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্স এবং আর্মি হেডকোয়ার্টার কনফারেন্স ও অডিটরিয়াম কমপ্লেক্সও উদ্বোধন করেন।
বাংলাদেশে ব্লাড ক্যান্সার ও ব্লাড সংক্রান্ত রোগব্যাধি দিনে দিনে বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ৫ বছরে ঢাকা সিএমএইচ-এ এ ধরনের ৪২৩ জন রোগীকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। কিন্তু এর বাইরে খুব কম সংখ্যক রোগী চিকিৎসা পেয়েছে। সিএমএইচ সূত্র জানায়, বোন ম্যারো প্রতিস্থাপন কেন্দ্রে ৯৪ জন সম্ভাব্য রোগীকে চিকিৎসা দেয়া যাবে। এ বাস্তবতা থেকেই ঢাকা সিএমএইচ-এ বিএমটি সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে। এতে বেসামরিক ও সামরিক উভয় ধরনের রোগীই চিকিৎসা পাবে।
ঢাকা সিএমএইচ-এ বিএমটি সেন্টারে রোগীদের জন্য আধুনিক চিকিৎসা সুবিধা রয়েছে। এখানে ভারত, থাইল্যান্ড ও সিঙ্গাপুরের মতো দেশগুলোর ব্যয়বহুল চিকিৎসার তুলনায় ব্লাড ক্যান্সার ও ব্লাড সংক্রান্ত রোগের চিকিৎসা কম খরচে করা যাবে।
নতুন প্রতিষ্ঠিত বিএমটি সেন্টারে বিএমটি ল্যাব, একটি বিশেষ হ্যামাটোলোজি ওয়ার্ড, স্টিম সেল ল্যাব, এ্যাপারসিস রুম, এইচইপিএ ফিল্টার/এইচভিএসি সিস্টেম এবং ব্লাড ব্যাংকসহ বেশ কয়েকটি স্থাপনা রয়েছে।
২০১৩ সালের ২০ অক্টোবর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দেশের প্রথম বোন ম্যারো প্রতিস্থাপন কেন্দ্র স্থাপন করা হয়।
এসব স্থাপনা উদ্বোধন শেষে সশস্ত্র বাহিনীর উন্নয়নের পাশাপাশি জাতির অব্যাহত শান্তি, অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি কামনা করে মোনাজাত করা হয়।
পরে প্রধানমন্ত্রী বিএমটি, আর্মি মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্স এবং আর্মি হেডকোয়ার্টার কনফারেন্স ও অডিটরিয়াম কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন স্থাপনা ঘুরে দেখেন।
এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিক, সেনাপ্রধান জেনারেল ইকবাল করিম ভূঁইয়া, বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার মার্শাল মোহাম্মদ এনামুল বারী, নৌবাহিনীর ভারপ্রাপ্ত প্রধান রিয়ার এডমিরাল এ এম এম আওরঙ্গজেব চৌধুরী, শেখ হেলাল উদ্দিন এমপি, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কাজী হাবিবুল আউয়াল, সামরিক চিকিৎসা সার্ভিস পরিদফতরের পরিচালক এবং পদস্থ বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। পাশাপাশি সাবেক সেনা প্রধানরাও উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে প্রধানমন্ত্রী ঢাকা সেনানিবাসে পৌঁছলে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল ইকবাল করিম ভূঁইয়া, এরিয়া কমান্ডার, লজিস্টিক এরিয়া, মেজর জেনারেল মিজান রহমান খান এবং সিএমএইচ-এর কমান্ড্যান্ট ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাসির উদ্দিন প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান। (বাসস)

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:০৭ অপরাহ্ণ | মে ০৫, ২০১৫