|

ভূমিকম্পে ঝিনাইগাতী কওমী মাদ্রাসার ভবনে ফাটল ॥ পরিত্যক্ত ঘোষনা

 

হারুন অর রশিদ দুদু, ঝিনাইগাতী (শেরপুর) ঃ

শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলা সদরে অবসি’ত মদিনাতুল উলুম কওমী মাদ্রাসা ও শিশু সদন (এতিমখানা) এর তিনতলা দুইটি ভবনে ভূমিকম্পে ফাটল ধরেছে। ঝিনাইগাতী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক এর নেতৃত্বে উপজেলা প্রকৌশলীর কর্মকর্তাগণ ছাত্রদের জানমালের নিরাপত্তার স্বার্থে তিনতলা ভবন দুইটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করেছেন। যার ফলে উক্ত মাদ্রাসার প্রায় ৪৫০ জন ছাত্রদের নিয়ে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ বিপাকে পড়েছে। মাদ্রাসার মোহ্‌তামিম মুফতি খালিছুর রহমান জানান, মদিনাতুল উলুম কওমী মাদ্রাসা ও শিশু সদন (এতিমখানা) ১৯৮৯ ইং সালে এলাকাবাসীর আর্থিক সহযোগীতায় স্থাপিত হয়। মাদ্রাসাটিতে হেফজ বিভাগসহ ক্লাস ওয়ান থেকে দাওরায়ে হাদীস পর্যনত্ম ৪৫০ জন ছাত্র অধ্যয়নরত আছে। আগামী ২১মে কওমী মাদ্রাসার বার্ষিক বোর্ড পরীক্ষা। এখন ছাত্রদের নিয়ে বিভিন্ন মসজিদ ও স্কুলে ক্লাস করানো হচ্ছে। প্রতিদিন উক্ত মাদ্রাসায় ১৫০ জন এতিম ও অসহায় ছাত্রদের ফ্রি খানা দেওয়া হয়। ভবন দুইটিতে ফাটল ধরায় ছাত্র ও শিক্ষকদের মাঝে এক অজানা আতঙ্ক বিরাজ করছে। মাদ্রাসায় জায়গা সংকুলান না থাকায় হেফজ খানার ১৫০ জন ছাত্রদের মসজিদের দু’তালায় ক্লাস নেওয়া হত। মসজিদের দু’তালার ছাদেও বিভিন্ন জায়গায় ভূমিকম্পে ফাটল ধরেছে। যার জন্য সেখানেও ক্লাস নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। মাদ্রাসায় শিক্ষকসহ ২২ জন কর্মচারী রয়েছেন। তিন তলা ভবন দুইটি ভেঙ্গে নতুন করে নির্মাণ করতে গেলে প্রায় ২ কোটি টাকা ব্যয় হবে। এতো টাকা মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের দ্বারা সংগ্রহ করা অসম্ভব। তাই সরকারীভাবে সার্বিক সহযোগীতা প্রয়োজন এবং সমাজের বিত্তবানদের কাছে আর্থিক সাহায্য সহযোগীতা কামনা করেছেন মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। মাদ্রাসার হিসাব নং- সঞ্চয়ী হিসাব-৭৫৩, জনতা ব্যাংক, ঝিনাইগাতী শাখা, জেলাঃ শেরপুর। যোগাযোগ ঃ ০১৭১২-০৭৬১০৫, ০১৯১৪-৮৬৯১৫৫। উল্লেখ্য, মদিনাতুল উলুম কওমী মাদ্রাসা ও শিশু সদন (এতিমখানা) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমাজসেবা অধিদপ্তর কর্তৃক নিবন্ধনভূক্ত।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:৫৮ অপরাহ্ণ | মে ০৩, ২০১৫