|

আজ ১ মে ময়মনসিংহ জেলার ২২৮ তম জন্মদিন

লোক লোকান্তর ডেস্কঃ  মোগল আমলে মোমেনশাহ নামে একজন সাধক ছিলেন, তাঁর নামেই মধ্যযুগে অঞ্চলটির নাম হয় মোমেনশাহী। ষোড়শ শতাব্দীতে বাংলার স্বাধীন সুলতান সৈয়দ আলাউদ্দিন হোসেন শাহ তাঁর পুত্র সৈয়দ নাসির উদ্দিন নসরত শাহ’র জন্য এ অঞ্চলে একটি নতুন রাজ্য গঠন করেছিলেন, সেই থেকেই নসরতশাহী বা নাসিরাবাদ নামের সৃষ্টি। নাসিরাবাদ নাম পরিবর্তন হয়ে ময়মনসিংহ হয় একটি ভুলের কারণে। বিশ টিন কেরোসিন বুক করা হয়েছিল বর্জনলাল এন্ড কোম্পানীর পক্ষ থেকে নাসিরাবাদ রেল স্টেশনে। এই মাল চলে যায় রাজপুতনার নাসিরাবাদ রেল স্টেশনে। এ নিয়ে অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়। পরবর্তীতে আরো কিছু বিভ্রান্তি ঘটায় রেলওয়ে স্টেশনের নাম পরিবর্তন করে ময়মনসিংহ রাখা হয়। সেই থেকে নাসিরাবাদের পরিবর্তে ময়মনসিংহ ব্যবহৃত হয়ে আসছে।
১ মে শুক্রবার বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ ও প্রাচীনতম জেলা ‘ময়মনসিংহ জেলার ২২৮ তম বর্ষপূর্তি’ । ১৭৮৭ সালের এই দিনে বৃটিশ সরকার ‘ময়মনসিংহ জেলা’ ঘোষণা করেন। ছবিতে জেলার প্রাচীন নিদর্শন শশী লজ।
এ উপলক্ষে জাতীয় প্রেস ক্লাবে দিনব্যাপী উৎসবের আয়োজন করেছে বৃহত্তর ময়মনসিংহ সাংবাদিক সমিতি-ঢাকা। এ আয়োজনে থাকছে জাতীয় ও সংগঠনের পতাকা উত্তোলন, বর্ণাঢ্য র‌্যালী, একগুচ্ছ বেলুন উড়ানো, ২২৮ পাউন্ডের কেক কাটা, কবিতা পাঠ, আলোচনা সভা, কৃতিমানদের সম্মাননা প্রদান ও ময়মনসিংহ গীতিকা অবলম্বনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশনা।
১৭৮৭ সালের এই দিনে বৃটিশ সরকার ‘ময়মনসিংহ জেলা’ ঘোষণা করেন। পরবর্তীতে ১৮৪৫ সালে জামালপুর, ১৮৬০ সালে কিশোরগঞ্জ, ১৮৬৯ সালে টাঙ্গাইল ও ১৮৮২ সালে নেত্রকোনা মহকুমা গঠন করা হয়। পরে সবকটি মহকুমা জেলায় উন্নীত হয়। ১৮৮৬ সালে ঢাকা‌-ময়মনসিংহ রেলপথ ও ১৮৮৭ সালে জেলা বোর্ড গঠন করা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:৪৯ অপরাহ্ণ | মে ০১, ২০১৫