|

মামলার কবলে ফুলপুর প্রেসক্লাব

 

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি :
এবার মামলায় হয়রানীর কবলে পড়েছে ফুলপুর প্রেসক্লাব। জানা যায়, ১২/০৩/২০০৮ইং তারিখে নির্বাচিত সভাপতি মোঃ নাজিম উদ্দিনের নেতৃত্বে ফুলপুর প্রেসক্লাবের নতুন করে যাত্রা শুরু হয়। পাশাপাশি আগের বিলুপ্ত সংগঠনের সাবেক সভাপতি মোঃ হুমায়ুন কবির মুকুল ও তার দলবল এর বিরোধীতায় শুরু করেন। প্রথমে মোঃ হুমায়ুন কবির মুকুল নিজে ও পরবর্তিতে আরও ২ জনকে সভাপতি সাজিয়ে জনমনে বিভ্রান্তির সৃষ্টি করেন। এক পর্যায়ে মোঃ খলিলুর রহমানকে সভাপতি ও এটিএম রবিউল করিমকে সাধারণ সম্পাদক সাজিয়ে ০৬/০৮/২০১২ইং তারিখ মোঃ নাজিম উদ্দিনের প্রেসক্লাবের বিরুদ্ধে আদালতে মোকদ্দমা নং-১৭৫/১২ (অন্য প্রকার) দায়ের করেন। পরবর্তিতে মোঃ হুমায়ুন কবির মুকুল সংসদ সদস্যের নাম ভাঙিয়ে নানান ছলচাতুরির আশ্রয়ে বিধি বহির্ভূতভাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে সভাপতি ও নিজে সাধারণ সম্পাদক হয়ে একটি কমিটি করেন। যার কোন কার্যালয় ও পরিচিতি এলাকায় নেই। কমিটিতে ভূয়া নাম দিয়ে রাখায় ১৫ জন সাংবাদিক এর প্রতিবাদ জানান। অপর দিকে এলাকার অধিকাংশ সাংবাদিক মোঃ নাজিম উদ্দিনের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ থেকে থানা রোডস’ কার্যালয়ে প্রেসক্লাব চালিয়ে যাচ্ছেন। প্রেসক্লাব নিয়ে আগের দায়েরকৃত মোকদ্দমা বিজ্ঞ আদালতে ২১/০৭/২০১৪ইং তারিখ খারিজের আদেশ হয়। এতে সংগত কারনেই মোঃ নাজিম উদ্দিনের প্রেসক্লাব বৈধতা লাভ করে। ২৪/০৩/২০১৫ইং তারিখ সদস্যগণ আরও বর্ধিত ভাবে মোঃ নাজিম উদ্দিনকে সভাপতি ও মোঃ মফিজুল ইসলাম অলিকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটির পুনর্গঠন করেন। এর বিরুদ্ধে মোঃ হুমায়ুন কবির মুকুল বাদী হয়ে বিজ্ঞ আদালতে আবার ০৮/০৪/১৫ইং তারিখ মামলা দায়ের করেন। প্রেসক্লাব সরকারী নিবন্ধনকৃত বা কোন সংগঠনের শাখা না হওয়ায় দেশের অধিকাংশ জেলা উপজেলাতেই একাধিক প্রেসক্লাব কমিটি ও কার্যালয় বিদ্যমান রয়েছে। তবে এভাবে প্রেসক্লাব নিয়ে একের পর এক মামলায় হয়রানীর ঘটনা খুবই বিরল। এছাড়াও আগে নাজিম উদ্দিনের নেতৃত্বাধীন প্রেসক্লাব কার্যালয়ে ৩ দফা চুরির ঘটনা ঘটে। এবার তারা মামলার কবলে পড়েছেন বলে প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দরা জানান।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:০০ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২৯, ২০১৫