|

থানায় বিয়ে !

আজহারুল হক, গফরগাঁও ঃ
ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে অনার্স (সন্মান) শ্রেণীতে পড়ুয়া এক শিক্ষার্থী বিয়ে করতে টালবাহানা করায় চলন্ত সিএনজি থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহুতির চেষ্টা চালায়। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে প্রেমিক যুগলকে আটক করে নিয়ে এসে শ্রীঘরে বিয়ে পড়ায়। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে এ বিয়ে সম্পন্ন হয়।
জানা যায়, উপজেলার কাজিরহাটি গ্রামের মোস্তফা কামালের মেয়ে গাজীপুর ভাওয়াল বদরে আলম কলেজের অনার্স (সন্মান) শ্রেণীতে পড়ুয়া বিথী আক্তারের সাথে পার্শ্ববর্তী মশাখালী গ্রামের আবু হানিফার ছেলে ব্যবসায়ী মাহবুবুল আলমের দীর্ঘদিন যাবত প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। পরে গত মঙ্গল প্রেমিক মাহবুবুল প্রেমিকা বিথীকে কোর্ট ম্যারিজের কথা বলে সিএনজি ভাড়া করে ময়মনসিংহের দিকে রওনা হয়। গফরগাঁও এসে প্রেমিক মাহবুবুল জানায়, ময়মনসিংহে নয় বাড়িতে গিয়ে কাজী (নিকাহ রেজিষ্ট্রার) দিয়ে বিয়ে সম্পন্ন করবে। অবস্থায় গফরগাঁও পৌর এলাকার ইসলামিয়া সরকারি হাইস্কুলের সামনে চলন্ত সিএনজি থেকে লাফিয়ে পড়ে বিথী আত্মহুতির চেষ্টা চালায়। খবর পেয়ে গফরগাঁও থানার সেকেন্ড অফিসার উপ-পরিদর্শক অহিদুজ্জামান প্রেমিক যুগলকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। পরে রাত সাড়ে ১০টার দিকে উভয় পরিবারের সম্মতিতে ৪ লাখ টাকা দেনমোহর ধার্য করে বিয়ে সম্পন্ন হয়।
এ ব্যাপারে গফরগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু ওবায়দা খান বলেন, এ ঘটনায় উভয় পরিবার একত্রিত হয়ে বিয়ের সম্মতি দিলে কাজী ডেকে বিয়ে পড়িয়ে দেওয়া হয়।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৪:৪৩ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২৯, ২০১৫