|

প্রস্তুতি শেষ, এবার ভোটের পালা

সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। প্রচারণাও শেষ  রোববার রাত ১২ টায়। এবার ভোটের পালা। ইতোমধ্যেই ঢাকার দুটি ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোট গ্রহণের জন্য যাবতীয় সামগ্রী পাঠিয়ে প্রস্তুত নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

জানা যায়, গোয়েন্দা সংস্থাগুলো ২৭০৫টি কেন্দ্রের মধ্যে ২১৮০টি কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করে ইসিতে রিপোর্ট পাঠিয়েছে। সব মিলিয়ে প্রায় ৮০ হাজার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মাঠে থাকছে। ইতোমধ্যে তিন সিটিতেই ভোটের দিন সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এবার মেয়র, সাধারণ কাউন্সিলর এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলরসহ মোট এক হাজার ১শ ৮০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। শেষ মুহুর্তে সিটি নির্বাচন উপলক্ষে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাদের পরস্পর বিরোধী বক্তব্যে নির্বাচনী ময়দানে উত্তাপ ছড়াচ্ছে।
তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সব মিলিয়ে ৮০ হাজার ফোর্স নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করবেন বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন সচিব সিরাজুল ইসলাম। তিনি বলেন, আমরা মোটামোটি হিসেব করে দেখেছি আনসার, পুলিশ, র্যা ব কোস্টগার্ড, বিজিবি মিলে প্রায় ৮০ হাজারের মতো নিরাপত্তাকর্মী নির্বাচনে নিয়োজিত থাকবেন। এছাড়া ক্যান্টনমেন্টে সেনাবাহিনী প্রস্তুত থাকবেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা যখনই মনে করবেন, তখনই সেনাবাহিনী চলে আসবে।

বহিরাগতদের পেলেই গ্রেফতার
রোববার থেকে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে বসানো হচ্ছে নিরাপত্তা চৌকি। এছাড়া নির্বাচনী কাজে ছাড়া সকল প্রকারের যানবাহন চলাচলের ওপর ভোটের দিন দেয়া হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। এ এলাকার বাসিন্দা ছাড়া আজ থেকে বহিরাগত ব্যক্তির অবস্থান নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ভোটের পরের দিন পর্যন্ত সিটি এলাকায় কোন বহিরাগত অবস্থান করলে সঙ্গে সঙ্গে তাকে গ্রেফতারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সংখ্যা
তিন সিটিতে মোট প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সংখ্যা ১১৮০ জন। এর মধ্যে উত্তরে মেয়র পদে ১৬ জন, সাধারণ কাউন্সিলর ২৮১ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ৮৯জন। দক্ষিণে মেয়র পদে ২০ জন। সাধারণ কাউন্সিল পদে ৩৯০ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৯৭ জন। একই ভাবে চট্টগ্রামে মেয়র পদে লড়াইয়ে রয়েছেন ১২ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২১৩ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৬২ জন।


থাকতে পারবেন না বহিরাগত, যান চলাচল বন্ধ

শনিবার রাত ১২টার পর থেকে বহিরাগতদের নির্বাচনী এলাকা ত্যাগ ছেড়ে যেতে বলা হয়েছে। রোববার থেকে কোনো বহিরাগত অবস্থান করলে সঙ্গে সঙ্গে তাকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পুলিশ প্রশাসন এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেবে। শনিবার রাত ১২টার পর থেকে মোটরসাইকেল এবং ২৭ এপ্রিল রাত ১২টা থেকে যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকবে। প্রার্থী, প্রশাসন ও অনুমোদিত ব্যক্তি এবং জাতীয় হাইওয়েসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে তা প্রযোজ্য হবে না।

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৬:৪০ পূর্বাহ্ণ | এপ্রিল ২৭, ২০১৫