|

শান্তির দাবীতে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম এর অবস্থান কর্মসূচীর ৯০ দিন

 

স্টাফ রিপোর্টার, ২৬ এপ্রিল, রোববার,
শান্তির দাবীতে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম এর অবস্থান কর্মসূচীর ৯০তম দিনে আজ (রবিবার) তিনি বিকেলে ময়মনসিংহের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে অবস্থান গ্রহণ করেন। প্রধানমন্ত্রীকে সংলাপের উদ্যোগ গ্রহণ এবং বিএনপির নেত্রীকে অবরোধ প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম ২৮ জানুয়ারি থেকে মতিঝিলের ফুটপাতে অবস্থান কর্মসূচী শুরম্ন করেন। পুলিশি হয়রানি, নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার, শীতের প্রকোপ, ঝড়-বৃষ্টিতেও ফুটপাত থেকে সরেননি তিনি। টানা ৬৪ দিন মতিঝিলে অবস্থানের পর দেশের প্রবীণ নাগরিক, বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষের অনুরোধে সাড়া দিয়ে ২ এপ্রিল থেকে শান্তির দাবী নিয়ে সারাদেশে সফর শুরম্ন করেছেন। মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হক, জিয়াউর রহমান বীর উত্তম, বঙ্গতাজ তাজ উদ্দীন আহমদ, সৈয়দ নজরম্নল ইসলাম, এম মনসুর আলী ও পচাত্তরের ১৫ আগস্ট নিহতদের কবর জিয়ারত করে তিনি গাজীপুর সদর, শ্রীপুর, সখিপুর, ফুলবাড়ীয়া ও ত্রিশাল উপজেলায় অবস্থান কর্মসূচী পালন শেষে শনিবার ময়মনসিংহ সদরের দাপুনিয়ায় ডি.কে.জি.এস. ইউনাইটেড কলেজ মাঠে অবস্থান করেন। রবিবার দুপুরে বেগুনবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দুপুরের খাবার খেয়ে বিকেলে ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে তাবু টানিয়ে অবস’ান শুরম্ন করেন। আগামীকাল (সোমবার) তিনি ফুলপুর উপজেলায় অবস্থান করবেন।
অবস্থান কর্মসূচীতে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ তার সাথে সংহতি প্রকাশ করেন। এসময় বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম বলেন, ‘মানুষের অধিকার আদায়ের জন্যে একাত্তরে অস্ত্র হাতে তুলে নিয়েছিলাম। দেশে শানিত্ম প্রতিষ্ঠার জন্যে ৯০ দিন ধরে পথে-ঘাটে-মাঠে অবস্থান করছি। আলস্নাহ যদি তওফিক দেন যতদিন এ দেশে শানিত্ম প্রতিষ্ঠিত না হবে ততদিন ঘরে ফিরবো না।’
অবস্থান  কর্মসূচীর ৯০তম দিনে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকী, আনিসুর রহমান, কেন্দ্রীয় নেতা ফরিদ আহমেদ, ছাত্র আন্দোলনের আহ্বায়ক রিফাতুল ইসলাম দীপ, শাহীনুর আলমসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী বঙ্গবীরের সাথে অবস্থান  করছেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:৩৪ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২৬, ২০১৫