|

ঈশ্বরগঞ্জে প্রতিবন্ধীর ধান কেঁটে নিল প্রতিপক্ষ

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে প্রতিপক্ষরা এক প্রতিবন্ধীর ধান কেঁটে নিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার উপজেলার রাজিবপুর ইউনিয়নের রামনগর গ্রামের আবুল হোসেনের শারীরিক প্রতিবন্ধী ছেলে আঃ মালেকের ক্ষেত থেকে কাঁচা ধান কেঁটে নিয়ে যায় প্রতিবেশী মৃত জহুর উদ্দিনের ছেলে আবুল কাশেম গংরা। দীর্ঘদিন ধরে দুই পক্ষের মধ্যে জমিটি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। গতকাল পর্যনত্ম এনিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
এলাকাবাসী ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত হয়ে বাড়ির আঙ্গিনায় ২২ শতক জমি প্রতিবন্ধী আঃ মালেকের দাদা মৃত জাফর আলী ভোগ দখল করে আসছিলেন। পরে তিনি আর্থিক সংকটে প্রতিবেশী মৃত জুবেদ আলীর নিকট সাফ কাওলা দলিল মূলে বিক্রি করে দেন। পরবর্তীতে জুবেদ আলীও জমিটি পুণঃরায় প্রতিবন্ধী মালেক ও তার ছোট ভাই মোফাজ্জল হোসেনের কাছে বিক্রয় করেন। ১০/১৫ বছর আগের ক্রয়কৃত জমিটি তারা ভোগ দখল করে আসছিলেন বলে জানিয়েছেন প্রতিবন্ধী মালেক ও তার ভাই। সম্প্রতি আবুল কাশেম জমিটি তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি বলে দাবী করেন। এনিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে মামলা মোকদ্দমা চলছে। জমিটির ওপর ঈশ্বরগঞ্জ চৌকী আদালত কর্তৃক নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ধান কেঁটে ফেলায় উভয় পক্ষের মধ্যে এনিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
এবিষয়ে আবুল কাশেম জানান, জমিটি তাদের পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া। কিন্ত ভুল বশতঃ মালেকদের নামে মাঠ জড়িপে রেকর্ডভূক্ত হওয়ায় তারা জমিটি নিজের বলে দাবী করছে। এনিয়ে আদালতে মামলা চলছে।
প্রতিবন্ধী আব্দুল মালেক জানান, জমিটি তার পিতা আবুল হোসেন পৈত্রিক সূত্রে পেয়েছিল। আর্থিক সংকটের কারণে প্রতিবেশী জুবেদ আলীর নিকট বিক্রয় করেন। পরবর্তীতে আবার প্রতিবন্ধী মালেক ও তার ভাই মোফাজ্জল হোসেন জুবেদ আলীর কাছ থেকে ক্রয় করেন। এদিকে তাদের দখলে থাকা জমিতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও বুধবার আবুল কাশেম গংরা ড়্গেতের কাঁচা ধান কেঁটে নিয়ে যায়। ##

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:২৭ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২৬, ২০১৫